সফলতার মুকুটজয়ীদের গল্পকথা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া
প্রকাশিত: ০৯:২৩ এএম, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

পরিশ্রম সাফল্যের চাবিকাঠি। যে যত পরিশ্রম করবে, সফলতা তাদের হাতছানি দিয়ে ডাকবে। আর এ সফলতার হাত ধরে আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারী দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ১৭২ জন শিক্ষার্থী পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) মোট আটটি অনুষদ থেকে ৮ জন শিক্ষার্থী পাচ্ছেন এ স্বর্ণপদক। আসুন শুনি এ সফলতার মুকুটজয়ীদের গল্পকথা।

লাবনী খাতুন, আইন অনুষদ
২০১৩ সালে রাবিতে ভর্তির সুযোগ। কয়েক দিন ক্লাসও। এরপর সেখানকার ভর্তি বাতিল করে ইবিতে চলে আসি। রাবিতে আমার পাশের রুমের এক আপু ছিল। তিনি উনাদের ফ্যাকাল্টি থেকে স্বর্ণপদক পেয়েছিলেন। আমি আপুর থেকেই অনুপ্রাণিত হয়েছি এবং সেই অনুপ্রেরণা আমাকে আজ অনেক দূর এগিয়েছে। আমার বাবা-মার স্বপ্ন ছিল আমি যেন বিচারকের আসনে অধিষ্ঠিত হয়। বাবা-মায়ের মুখের দিকে তাকিয়ে আমি প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়েছি ভালো রেজাল্ট ধরে রাখতে এবং তাদের স্বপ্ন পূরণ করতে। প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে স্বর্ণপদক গ্রহণ করব, এটা মনে পড়লেই আমার মনটা ভরে ওঠে।

শাহবুব আলম, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ
প্রবল আকাঙ্খা, পরিশ্রম আর ধৈর্যই আমার এ সাফল্যের কেন্দ্রবিন্দু। আর তার পেছনে কাজ করেছে আমার বাবা-মা ও শিক্ষকের অনুপ্রেরণা। এসবের সঙ্গে সমন্বয় ছিল নিয়মানুবর্তিতার। তাই সকল শিক্ষার্থীদের প্রতি নিয়মানুবর্তিতা মেনে চলার আহ্বান থাকবে। ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ থেকে সর্বোচ্চ রেজাল্ট অর্জন করে প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক এ মনোনীত হতে পেরে সত্যিই আমি ভাগ্যবান। ভবিষ্যতে দেশ ও জাতির উন্নয়নে যেন অবদান রাখতে পারি সে চেষ্টা অব্যহত থাকবে।

এ এস এম ইমরান হোসেন ভুঁইয়া, প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদ
অসম্ভব ভালো লাগছে। কখনও ভাবিনি ভাগ্য বিধাতা আমার জন্য এতটা সম্মান রেখেছেন। কঠোর পরিশ্রম আর সদিচ্ছা থাকলে অবশ্যই আল্লাহ তাকে প্রতিদান দেন। প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে আমাকে অনেকেই সাহায্য করেছেন, যেমন বাবা-মা, শ্রদ্ধেয় শিক্ষক মণ্ডলী ও আমার কাছের বন্ধু আলী হাসান। যে কীনা আমাকে সাহস জুগিয়েছে সবসময়। সামনের দিনগুলোতে আমি ‘ব্লাকচেইন টেকনোলজির উপর গবেষণা ও উচ্চশিক্ষা নিতে আগ্রহী।

জাহিদুল ইসলাম, কলা অনুষদ
আমি প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক ২০১৮ প্রাপ্তির জন্য মনোনীত হতে পেরে সর্বপ্রথম আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। সেই সঙ্গে বাবা-মা ও মাথার তাজ সমতুল্য সম্মানিত শিক্ষকদের প্রতি। যাদের নিঃস্বার্থ ভালোবাসা ও আন্তরিক প্রচেষ্টায় আজ আমার এ প্রাপ্তি। এ সাফল্যের স্বপ্ন আমি সেদিন দেখেছিলাম যেদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে পা রেখে জানতে পারলাম সর্বোচ্চ সিজিপিএ অর্জনকারীদের প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়। সেদিনের স্বপ্ন আজ বাস্তবে রুপ নিয়েছে। ভবিষ্যৎ জীবনে আমার স্বপ্ন বাস্তবায়নে দেশ ও জাতির কাছে দোয়া প্রত্যাশি।

নাজনিন আক্তার, জীববিজ্ঞান অনুষদ
ভাবতেও পারিনি আমি প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে স্বর্ণপদক পাবো। আসলে জীবনে সফল হতে হলে, জ্ঞানার্জন করতে হলে প্রচুর পড়াশুনা করতে হবে এবং পড়ালেখার প্রতি ভালোবাসা সৃষ্টি করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মতো অনুপ্রেরণাকারী এবং সফল রাষ্ট্রনায়কের হাত থেকে সর্বোচ্চ স্বীকৃতি পাবো, ভেবেই আনন্দে আত্মহারা হয়ে যাই।

আলমগীর হোসেন, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ
ছোটবেলা থেকেই লেখাপড়ার প্রতি মনোযোগের কারণে বাবা-মায়ের অনেক সাপোর্ট ছিল। পড়াশুনার মাঝে দেখতাম অনেক লেখকের রেজাল্ট ফার্স্টক্লাস ফার্স্ট এবং বিভাগের অনেক বড় ভাইয়ের কথা শুনতাম যাদের রেজাল্টও ফার্স্টক্লাস ফার্স্ট। তাদের কাছেই আমি অনুপ্রেরণা খুঁজে পাই। অনার্স ২য় বর্ষে উঠে শুনলাম রেজাল্ট ভালো হলে নাকি প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পাওয়া যায়। তখন থেকেই পড়াশুনার প্রতি আগ্রহ আরও বেড়ে যায়। প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে কিছু পাওয়া, এটা একবাক্যে বললে আমার জীবনের সব থেকে বড় প্রাপ্তি।

শাহরিয়ার মোর্শেদ, বিজ্ঞান অনুষদ
প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক আমার জন্য যতটা না আনন্দের, এর চেয়ে বেশি আশ্চর্যের! এ নিয়ে আমি কখনও ভাবিনি, স্বপ্ন দেখিনি আবার আশাও রাখিনি। কিন্তু আশ্চর্যের ঢেউ পেরুতেই অসম্ভব আনন্দের ভেতরে অনেকের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ না করে পারি না। নিজের বিশ্ববিদ্যালয়, ভালোবাসার পরিসংখ্যান বিভাগ, শ্রদ্ধেয় শিক্ষকমণ্ডলী ও আমার ক্লাসমেটদের প্রতি অনেক কৃতজ্ঞতা জানাই।

জাকারিয়া রহমান, ধর্মতত্ত্ব ও ইসলাম শিক্ষা অনুষদ
তিনটি বিষয়ের সমন্বয়ে একটি মানুষের সফলতা আসে। প্রবল আকাঙ্খা, ধৈর্য ও লাগাতার পরিশ্রমের পরেই আমরা সফলতার সিঁড়িতে উঠতে সক্ষম হই। শুধুমাত্র মেধা থাকলে হয় না,পরিশ্রমও থাকতে হয়। আমার এ সফলতার পেছনে আল্লাহর রহমত, বাবা-মায়ের সাপোর্ট ও শিক্ষকদের অবদান ছিল সবচেয়ে বেশি। অর্জনের পরে যে স্বীকৃতিটা আসে, এটা অনেক দূর এগিয়ে যেতে সহায়তা করে।

রায়হান মাহবুব/এমএএস/জেআইএম

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com