মুক্তিযোদ্ধা হেমায়েত উদ্দিন বীর বিক্রম আর নেই


প্রকাশিত: ০৭:২৫ এএম, ২২ অক্টোবর ২০১৬

মুক্তিযুদ্ধে নবম সেক্টরের সাব সেক্টর কমান্ডার হেমায়েত উদ্দিন বীর বিক্রম (৭৪) আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। শনিবার ভোরে মিরপুরের ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন।

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে তিনি নিজ নামে হেমায়েত বাহিনী প্রতিষ্ঠ করেন। তার নেতৃত্বে বৃহত্তর ফরিদপুরের গোপালগঞ্জ, কোটালীপাড়া, মাদারীপুর, কালকিনি ও বরিশালের উজিরপুর, গৌরনদী, আগৈলঝাড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় পাকহানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে একাধিক যুদ্ধে হেমায়েত বাহিনী বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

কোটালীপাড়ার রামশীল ইউনিয়নের জহরেরকান্দির ঐতিহাসিক যুদ্ধে পাকহানাদার বাহিনীকে চরমভাবে পর্যদস্ত করে হেমায়েত বাহিনী। ওই যুদ্ধে বেশ কয়েকজন পাকসেনা নিহত হয়। গুরুতর আহত হন হেমায়েত উদ্দিন বীর বিক্রম।

জহরেরকান্দির যুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে বীর বিক্রম খেতাবে ভূষিত করেন। বর্তমান সরকারের আমলে হেমায়েত উদ্দিন বীর বিক্রমের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় কোটালীপাড়ার টুপুরিয়া গ্রামে হেমায়েত বাহিনী স্মৃতি জাদুঘর প্রতিষ্ঠিত হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন আহম্মদ, আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকার প্রতিনিধি শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম হুমায়ূন কবীর, চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান হাওলাদার, পৌর মেয়র এইচ এম অহিদুল ইসলাম পৃথক পৃথকভাবে শোক প্রকাশ করেছেন।

হেমায়েত উদ্দিন বীর বিক্রমের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সোমবার জাতীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে তাকে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা জানানো হবে। পরে মরদেহ কোটালীপাড়ার টুপুরিয়া গ্রামে তার বাড়িতে আনা হবে। এরপর তার প্রতিষ্ঠিত হেমায়েত বাহিনী স্মৃতি জাদুঘর প্রাঙ্গনে জানাযা শেষে সেখানে তার দাফন সম্পন্ন করা হবে।

হুমায়ূন কবীর/এসএস/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :