নাসিরনগরে সংখ্যালঘু পরিবারের জায়গা দখলের অভিযোগ


প্রকাশিত: ০৯:৪১ এএম, ২৪ জানুয়ারি ২০১৭

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলার ঘটনার পর এবার ভূমিসদ্যু চক্র সংখ্যালঘু এক পরিবারের জায়গা-সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল করে নেয়ার পাঁয়তারা করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভূমিদস্যুরা নাসিরনগর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের হরিণবেড় গ্রামের ভুক্তভোগী ওই পরিবারটিকে উচ্ছেদ করতে গত শনিবার (২১ জানুয়ারি) মধ্যরাতে তাদের বসত ঘরে অগ্নিসংযোগ করেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে হরিপুর ইউনিয়নের হড়িণবেড় গ্রামের রণজিৎ দাসের সঙ্গে একই ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের নাছির উদ্দিনের ছেলে উসমান খানের জমি নিয়ে বিরোধ চলছে।

এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে মামলাও রয়েছে। উসমান খানের দাবি, তিনি রণজিতের দাদা রাজাচরণ দাসের জীবদ্দশায় তার কাছ থেকে তিন শতক জায়গা কিনেছেন।

তবে রণজিৎ বলছেন, তার দাদা উসমানের কাছে কোনো জায়গা বিক্রি করেননি। তাদের বাড়ির জায়গা দখলে নেয়ার জন্য উসমান দীর্ঘদিন ধরে তাদের ওপর অত্যাচার-নির্যাতন চালিয়ে আসছেন।

সর্বশেষ উসমানের করা চাঁদাবাজির মামলায় গত সোমবার (১৬ জানুয়ারি) রণজিতকে পুলিশ গ্রেফতার করে। বর্তমানে রণজিৎ জেলা কারাগারে রয়েছেন।

এ ঘটনার পর গত ২১ জানুয়ারি মধ্যরাতে উসমান তার সহযোগীদের নিয়ে রণজিতের বসত ঘরে অগ্নিসংযোগ করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন রণজিতের স্ত্রী সাথী রাণী দাসা। এর আগে ২১ জানুয়ারি সকালে রণজিতের বাড়ি থেকে  লাখ টাকা মূল্যের চারটি গাছও নিয়ে যান ওসমান।

সাথী রাণী দাস জাগো নিউজকে জানান, উসমান বেশ কয়েক বছর ধরে তাদের জায়গা-সম্পত্তি জোরপূর্বক দখলের জন্য পাঁয়তারা করছেন। ১৬ জানুয়ারি পুলিশ রণজিতকে ধরে নিয়ে যাওযার পর থেকে তাদেরকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের জন্য বেপরোয়া হয়ে ওঠেন উসমান ও তার বাবা নাছির উদ্দিন।

গত ২১ জানুয়ারি মধ্যরাতে উসমান তার সহযোগী জালাল খান ও মছিদ উদ্দিনসহ বেশ কয়েকজনকে নিয়ে তাদের বসত বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছেন।

তিনি আরও জানান, উসমান ও তার বাবা নাছির উদ্দিন তাদেরকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করে ভারতে পাঠিয়ে দেয়ার হুমকি দিচ্ছেন। বর্তমানে তারা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

অভিযোগের ব্যাপারে উসমান খানের কোনো বক্তব্য পাওয়া না গেলেও তার বাবা নাছির উদ্দিন অভিযোগ অস্বীকার করে জাগো নিউজকে বলেন, আমরা কাউকে ভারতে পাঠিয়ে দেয়ার হুমকি দেইনি বরং রণজিতই আমাদের জায়গা-সম্পত্তি জোর করে দখলে নিয়ে রেখেছেন। এ নিয়ে আদালতে মামলা চলছে।

এ ব্যাপারে নাসিরনগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবু জাফর বলেন, দুই পরিবারের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জায়গা সংক্রান্ত বিষয়ে আদালতে মামলা বিচারাধীন। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বিষয়টি স্থানীয়দের সঙ্গে আলোচনা করে সামাজিকভাবে নিষ্পত্তি করার চেষ্টা চলছে।

আজিজুল সঞ্চয়/এএম/আরআইপি

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]