বগুড়ায় ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে সেনা সদস্য নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ১২:১৩ পিএম, ২৯ নভেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ১২:১৮ পিএম, ২৯ নভেম্বর ২০১৭
বগুড়ায় ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে সেনা সদস্য নিহত

বগুড়ায় ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে শফিকুল ইসলাম (৪৫) নামে সদ্য অবসরপ্রাপ্ত এক সেনা সদস্য নিহত হয়েছেন। বুধবার ভোর রাতে বগুড়া শহরতলীর শাকপালা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় ছিনতাইকারীরা তার ছেলে যশোর সেনানিবাসে সৈনিক হিসেবে কর্মরত আশরাফুল ইসলামকেও মারপিট করে তার কাছ থেকে মোবাইল ফোন ও ম্যানিব্যাগ ছিনিয়ে নিয়েছে।

নিহত শফিকুল ইসলাম বগুড়া জাহাঙ্গীরাবাদ সেনানিবাসে সার্জেন্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে তিনি অবসরকালীন ছুটিতে যান। তিনি পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সেনানিবাসের আবাসিক এলাকাতেই বসবাস করতেন। তিনি নরসিংদী জেলার মনোহারদী উপজেলার মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে।

এ ঘটনায় বগুড়ার শাজাহানপুর থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে গ্রেফতার করেছে।

বগুড়া পুলিশের মিডিয়া বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী জানান, অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য শফিকুল ইসলামের ছেলে আশরাফুল ইসলাম যশোর সেনানিবাসে সৈনিক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। সেখানে প্রশিক্ষণ শেষে মঙ্গলবার রাতে তিনি বাসযোগে বগুড়ার উদ্দেশে রওয়ানা হন। বুধবার ভোর রাতের দিকে তিনি বগুড়া জাহাঙ্গীরাবাদ সেনানিবাস সংলগ্ন শাকপালা বাসস্ট্যান্ডে নামেন। তাকে এগিয়ে নিতে বাবা শফিকুল ইসলাম ওই বাস স্ট্যান্ডে আগে থেকেই উপস্থিত ছিলেন।

পরে দু’জন জাহাঙ্গীরাবাদ সেনানিবাসের আবাসিক এলাকায় বাসার দিকে আসার সময় রাস্তায় ওঁৎপেতে থাকা ৭/৮ জন ছিনতাইকারী তাদের পথরোধ করে। এরপর তাদের কাছ থেকে মালামাল ছিনিয়ে নেয়ার সময় শফিকুল ইসলাম বাধা দেন। এ সময় ছিনতাইকারীরা তার কোমর ও পায়ে ছুরিকাঘাত করে। তাদের চিৎকারে পাশেই মিলেনিয়াম স্কলাসটিকা স্কুলে কর্তব্যরত নৈশ প্রহরীরা এগিয়ে যান এবং শফিকুল ইসলামকে উদ্ধার করে জাহাঙ্গীরাবাদ সেনানিবাসের চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যান। সেখানে থেকে বগুড়া কম্বাইন্ড মিলিটারি হাসপাতালে (সিএমএইচ) নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

সনাতন চক্রবর্তী বলেন, ছিনতাইকারীরা নিহত শফিকুলের ছেলের কাছ থেকে ২টি মোবাইল ফোন এবং ম্যানিবাগ ছিনিয়ে নিয়েছে। তারা তাকেও মারপিট করে আহত করেছে।

শাজাহানপুর থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, ওই ঘটনায় নিহতের ছেলে আশরাফুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। জড়িতদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে। এরই মধ্যে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রবিউল, রাকিব ও বগা নামে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে ছিনতাইয়ের অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে।

লিমন বাসার/আরএআর/জেআইএম