খুনিদের বেহেস্ত প্রার্থনাকারী অধ্যক্ষ কারাগারে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি টাঙ্গাইল
প্রকাশিত: ১১:০২ এএম, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ১১:৫৪ এএম, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বেহেস্ত নসীব প্রার্থনাকারী দারুল উলুম কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ ড. ফায়জুল আমীর সরকারের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

গত শনিবার রাতে টাঙ্গাইল জেলা পরিষদের সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আবদুল কাদের তালুকদার বাদী হয়ে গোপালপুর থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইন-১৬ ধারায় মামলা দায়ের করেছেন।

আটক অধ্যক্ষকে রোববার সকালে টাঙ্গাইলের আমলী আদালত গোপালপুর অঞ্চলের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম কিবরিয়ার আদালতে পাঠানো হয়। পরে আদালতের বিচারক তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। টাঙ্গাইল কোর্ট ইন্সপেক্টর আনোয়ারুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গোপালপুর থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আটক গোপালপুর দারুল উলুম কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ ড. ফায়জুল আমীর সরকার কুমিল্লা জেলার ভাঙ্গুরা বাজার (পুরনো মুরাদনগর) থানা এলাাকার বাসিন্দা। তিনি এর আগে জামালপুরের সরিষাবাড়ীর আরামনগর কালিম মাদরাসায় ১৯৯৯ সালে থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত কর্মরত ছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে গোপালপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান আল মামুন বলেন, টাঙ্গাইল জেলা পরিষদের সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আবদুল কাদের তালুকদার বাদী হয়ে শনিবার রাতে থানায় মামলা দায়ের করেন। আটক অধ্যক্ষকে রোববার সকালে টাঙ্গাইলে আদালতে পাঠানো হয়। আমরা বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ-খবর নিচ্ছি তিনি জামায়াত-শিবির কিংবা রাষ্ট্রবিরোধী জঙ্গি সংশ্লিষ্ট কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিলেন কি-না।

তিনি আরও জানান, অধ্যক্ষ ড. ফায়জুল আমীর সরকারকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি মুখ ফসকে ভুলবসত এসব কথা বলেছেন বলে জানিয়েছেন।

মামলা সূত্র ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সকাল আটটায় গোপালপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণের পূর্বে একাত্তরে শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত এ দোয়া অনুষ্ঠানে মোনাজাতে নের্তৃত্ব দেন গোপালপুর কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ ড. ফায়জুল আমীন সরকার।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ইউনুস ইসলাম তালুকদার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিলরুবা শারমীন, ওসি হাসান আল মামুন, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল লতিফ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মরিয়ম আক্তার মুক্তা, পৌর মেয়র রকিবুল হক ছানা, জেলা পরিষদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আবদুল কাদের তালুকদার, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির টাঙ্গাইল জেলা শাখার আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট কেএম আবদুস সালাম, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবদুস সোবহান তুলাসহ আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী, সব সরকারি কর্মকর্তা এবং মিডিয়াকর্মীরা।

দোয়া অনুষ্ঠানে অধ্যক্ষ ড. ফায়জুল আমীন সরকার বলেন, হে আল্লাহ তুমি পঁচাত্তরে বঙ্গবন্ধু হত্যাকারী, যাদের ফাঁসি হয়েছে তাদের বেহেস্ত নসীব করো। হে আল্লাহ তুমি বিচারের পর তাদেরকে বেহেস্ত নসীব করো। দোয়া অনুষ্ঠানে তার এ ধরনের বক্তব্যে উপস্থিত সবাই হতবাক হয়ে যান। এ নিয়ে উপস্থিত নেতৃবৃন্দের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।

আরিফ উর রহমান টগর/এমএএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :