জেল থেকে বের হয়ে নারী ইউপি সদস্যকে মারধর

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ১১:০২ এএম, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ১১:০৫ এএম, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭
জেল থেকে বের হয়ে নারী ইউপি সদস্যকে মারধর

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় মাদকাসক্ত এক বখাটের নির্যাতনে ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আর্জিনা বেগম (৪২) আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত নারী ইউপি সদস্য বাদী হয়ে মাদকাসক্ত বখাটে সানাউল হকের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার দুপুরে থানায় অভিযোগ করেছেন।

থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই ইউনিয়নের ভুতবাড়ি গ্রামের নায়েব আলীর ছেলে সানাউল হকের (২৮) বিরুদ্ধে মাদকসেবন ও বখাটেপনার একাধিক অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি ভুতবাড়ি বাঁধে আশ্রিত মিম খাতুন নামে এক স্কুলছাত্রীকে নির্যাতনের ঘটনার সঙ্গে সানাউল হকের জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠে।

পুলিশ গত ১৬ ডিসেম্বর বিকেলে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাদকদ্রব্য সেবনের অভিযোগে সানাউল হককে গ্রেফতার করে বগুড়া কারাগারে পাঠায়। একদিন পর ১৭ ডিসেম্বর সানাউল হক আদালত থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে বাড়িতে আসে।

এদিকে, ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আর্জিনার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে সানাউল হককে পুলিশ গ্রেফতার করে এমন তথ্য জানতে পারে সানাউল। এতে আর্জিনার উপর ক্ষুদ্ধ হয়ে মঙ্গলবার সকালে সানাউল তার বাড়িতে যায়। সেখানে পুলিশকে দিয়ে ধরিয়ে দেয়ার অভিযোগ তুলে ইউপি সদস্য আর্জিনাকে মারধর করে সানাউল হক।

এ সময় স্থানীয় লোকজন আহত ইউপি সদস্যকে উদ্ধার করে ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে দেয়। এঘটনায় মঙ্গলবার দুপুরে নির্যাতিত ইউপি সদস্য বাদী হয়ে সানাউল হকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেন।

এ ঘটনায় সানাউল হক বলেন, ইউপি সদস্য মাদক সেবনের মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে আমাকে পুলিশের হাতে ধরে দিয়েছিল। এ ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য তার বাড়িতে গিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আমার মায়ের সঙ্গে তার হাতাহাতি হয়েছে।

ধুনট থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) রেজাউল করিম বলেন, মাদকদ্রব্য সেবনের অভিযোগে সানাউল হককে গ্রেফতারের পর ৩৪ ধারায় মামলা দিয়ে তাকে বগুড়া কারাগারে পাঠানো হয়েছিল। ইউপি সদস্যর অভিযোগের ভিত্তিতে এখন তাকে আবারও খোঁজা হচ্ছে।

লিমন বাসার/এমএএস/পিআর