বাড়ির আলমারিতে শিশুর মরদেহ

উপজেলা প্রতিনিধি ঈশ্বরদী (পাবনা)
প্রকাশিত: ১২:৩৪ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০১৮
বাড়ির আলমারিতে শিশুর মরদেহ

শ্বাসরোধ করে হত্যার পর বাড়ির আলমারিতে লুকিয়ে রাখা হয়েছিল দেড় মাস বয়সী আতিকা জান্নাতের মরদেহ। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে শিশুটির বাবাসহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

শনিবার পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার অরণকোলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। শিশুটি বেলা ১২টা থেকে নিখোঁজ ছিল বলে জানা গেছে। রাতে তার মরদেহ পাওয়া যায়। আতিকা ওই এলাকার ব্যবসায়ী আশরাফুল ইসলামের মেয়ে।

পুলিশ জানায়, দুপুরে ঈশ্বরদীর অরণকোলা এলাকার নিজ বাড়ি থেকে ব্যবসায়ী আশরাফুল ইসলামের শিশু কন্যা আতিকা জান্নাতকে অপরিচিত কেউ চুরি করেছে এমন অভিযোগে খোঁজ শুরু করে পুলিশ। পরে রাত পর্যন্ত ঈশ্বদীর বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশি করে আতিকার খোঁজ না মিললে শিশুটির বাবা আশরাফুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এসময় তার আচরণ সন্দেহজনক মনে হলে বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়। পরে আলমারিতে কাপড় জড়ানো অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

আতিকার মা নিশি খাতুন জানান, দুপুরে আতিকাকে খাটে শুইয়ে রেখে ছাদে রোদ পোহাতে গিয়েছিলেন তিনি। পরে ছাদ থেকে ঘরে এসে দেখেন তার মেয়ে নেই। এসময় বাড়ির চারপাশ ও পাশের বাড়িতে খোঁজ নেওয়া হয়। দুপুর থেকে অনেক খোঁজ করেও আতিকার সন্ধান না পাওয়ায় ঈশ্বরদী থানায় বিষয়টি জানানো হয়।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে শিশুটির বাবা, দাদা-দাদীসহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

আলাউদ্দিন আহমেদ/এফএ/আইআই