বিমান দুর্ঘটনা : শ্রেয়ার জন্য কাঁদছেন বান্ধবীরা

উপজেলা প্রতিনিধি মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)
প্রকাশিত: ০৭:০৩ পিএম, ১৪ মার্চ ২০১৮

নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা বিমান বিধ্বস্তে নিহত টাঙ্গাইলের মির্জাপুর কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজের ছাত্রী শ্রেয়া ঝাহের আত্মার শান্তি কামনায় শোক ও প্রার্থনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার দুপুর ১২টার দিকে কুমুদিনী পরিবারের পক্ষ থেকে কমপ্লেক্সের জান্ডা হলে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে মেডিকেল কলেজ, কুমুদিনী নার্সিং স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ভারতেশ্বরী হোমসের ছাত্রীরা ছাড়াও শিক্ষকরা উপস্থিত ছিলেন।

শোক সভায় কোরআন তেলাওয়াত, গীতা, বাইবেল ও ত্রিপিটক পাঠের মাধ্যমে দিবসটির সূচনা করা হয়। এ সময় শ্রেয়ার সহপাঠীরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। একইসঙ্গে কাঁদেন কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজে পড়ুয়া শ্রেয়ার বান্ধবীরা।

কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট্রের পরিচালক (শিক্ষা) প্রতিভা মুৎসুদ্দির সভাপতিত্বে এ সময় আলোচনা করেন- কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট অব বেঙ্গলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজীব প্রসাদ সাদা, কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল জলিল, অধ্যক্ষ প্রফেসর এম এ হালিম, কুমুদিনী হাসপাতাল অ্যান্ড মেডিকেল কলেজের পরিচালক ডা. দুলাল চন্দ্র পোদ্দার, কুমুদিনী নার্সিং স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ রিনা ক্রুস, ভারতেশ্বরী হোমসের প্রতিনিধি হেনা সুলতানা ও শ্রেয়ার সহপাঠীরা। এর আগে শ্রেয়ার স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

শ্রেয়া ঝাহ নেপালের মাহোত্রারী সানফা-৩ এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। তার বাবার নাম লাকসমান ঝাহ ও মায়ের নাম মাধুরী ঝাহ। শ্রেয়া কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজে পঞ্চম বর্ষের এমবিবিএস কোর্সের ছাত্রী ছিলেন।

কলেজ কর্তৃপক্ষ জানায়, রোববার মেডিকেল কলেজের মিডটার্ম পরীক্ষায় অংশ নেয়ার সময় নেপাল থেকে শ্রেয়া ঝাহ তার দাদার মৃত্যু সংবাদ পায়।

সংবাদ পেয়ে কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ছুটি নিয়ে পরদিন সোমবার সকালে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে নেপালের উদ্দেশে যাত্রা করে।

স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ২০ মিনিটে কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু হয়। শ্রেয়ার মর্মান্তিক মৃত্যুতে কুমুদিনী পরিবার শোক প্রকাশ করে কালোব্যাচ ধারণ করে।

শ্রেয়ার সহপাঠী পিও কর্মকার ও তার স্বদেশি শিক্ষার্থীরা জানান, শ্রেয়া ঝাহ সদা হাস্যোজ্জ্বল ছিলেন। সবার সঙ্গে মিলেমিশে থাকতেন এবং আমাদের খুব ভালো বন্ধু ছিলেন। মঙ্গলবার বিকেলে কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজের ছাত্রীরা শ্রেয়ার স্মরণে ক্যাম্পাসে একটি শোক র‌্যালি বের করে।

এস এম এরশাদ/এএম/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :