৮ বছর ধরে শেকলে বাঁধা রাহিম

উপজেলা প্রতিনিধি শ্রীপুর (গাজীপুর)
প্রকাশিত: ০৮:১৪ পিএম, ১৮ এপ্রিল ২০১৮ | আপডেট: ০৮:১৪ পিএম, ১৮ এপ্রিল ২০১৮

গাজীপুরের শ্রীপুরের শৈলাট গ্রামে রাহিম (১০) নামের এক প্রতিবন্ধী শিশুকে প্রায় ৮ বছর ধরে পায়ে শেকল বেঁধে রাখা হয়েছে। তবে পরিবারের লোকজন বলছেন, শিশুটির নিরাপত্তার কথা ভেবেই জন্মের দুই বছর পর থেকেই তাকে শেকলে বেঁধে রাখা হচ্ছে। শিশুটি শৈলাট গ্রামের হতদরিদ্র ভ্যানচালক আব্দুস সামাদের ছেলে।

শিশুটির বাবা আব্দুস সামাদ জানান, তার বাড়ি-ভিটে ছাড়া আর কিছুই নেই। ভ্যান চালিয়ে সংসার চালান। স্ত্রী, তিন ছেলে ও দুই মেয়েকে নিয়ে তার সংসার। সবার ছোট রাহিম ২০০৮ সালে প্রতিবন্ধী হিসেবে জন্ম হয়। জন্মের পর বিভিন্ন কবিরাজ দেখিয়ে চিকিৎসা করিয়েও কোনো লাভ হয়নি। হাঁটতে পারার পর থেকেই সে বাড়ির বাইরে চলে যায়। তার বয়স যখন আড়াই বছর তখন থেকেই তার নিরাপত্তার কথা ভেবে পায়ে শেকল বেঁধে রাখা হচ্ছে।

গাজীপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড সদস্য মিজানুর রহমান জানান, শিশুটির বাবা খুবই হতদরিদ্র। তবে তার পরিবারের এই প্রতিবন্ধী শিশুটির কথা বিবেচনা করে ইতোমধ্যেই তাকে সরকারি সহায়তা কার্ড দেয়া হয়েছে।

প্রতিবন্ধী শিশুকে শেকল দিয়ে বেঁধে রাখার বিষয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. অশোক কুমার সাহা জানান, প্রতিবন্ধী শিশুকে শেকলে বেঁধে রাখা ভয়ানক একটি দিক। এতে শিশুটির মানসিক বৃদ্ধির পথে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করবে। তবে শিশুটিকে স্বাভাবিকভাবে বেড়ে উঠার পরিবেশ তৈরি করার জন্য তার পরিবারকেই মূখ্য ভূমিকা পালন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে সর্বপ্রথম কাজ হচ্ছে তার পায়ের শেকল খুলে দেয়া।

শিহাব খান/এমএএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :