শাশুড়ি-ননদের দেয়া আগুনে অবশেষে না ফেরার দেশে খাদিজা

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি কালীগঞ্জ (গাজীপুর)
প্রকাশিত: ০১:২৬ এএম, ১২ অক্টোবর ২০১৮

অবশেষে মৃত্যুর সঙ্গে টানা সাতদিন লড়াই করে না ফেরার দেশে চলে গেলেন শাশুড়ি ও দুই ননদের দেয়া আগুনে দগ্ধ গাজীপুরের কালীগঞ্জের গৃহবধূ খাদিজা বেগম (৩০)। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

এর আগে পারিবারিক কলহের জেরে গত শুক্রবার (৫ অক্টোবর) শাশুড়ি মনোয়ারা বেগম (৫৫) ননদ সাফিয়া বেগম (৩৭) ও আরেফা (২৫) মিলে ঘরে বেঁধে তিন সন্তানের জননী গৃহবধূ খাদিজা বেগমের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়।

গৃহবধূর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবু বকর মিয়া ও নিহতের স্বামী নবীন প্রধান (৪০)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ১৬ বছর আগে উপজেলার বক্তারপুর ইউনিয়নের উত্তর খৈকড়া গ্রামের মৃত মনিরউদ্দিনের রিকশাচালক ছেলে নবীন প্রধানের সঙ্গে বিয়ে হয় খাদিজার। বিয়ের পর থেকে নানা বিষয় নিয়ে শাশুড়ি ও দুই ননদ মিলে প্রায়ই নির্যাতন করতো তাকে। ননদ সাফিয়া স্বামীকে নিয়ে বাবার বাড়িতেই থাকতো। অপর ননদ আরেফার বিয়ে হলেও স্বামীর সাথে বনিবনা না হওয়ায় মায়ের সাথে বাবার বাড়িতেই থাকতো।

সূত্র আরও জানায়, গত শুক্রবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে গৃহবধূ খাদিজার সাথে শাশুড়ি ও দুই ননদের ঝগড়া হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে শাশুড়ি ও ননদ মিলে ঘরে বেঁধে শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দরজা বন্ধ করে দেয়। পরে প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তারপর ঢামেকের বার্ন ইউনিটে পাঠায়।

প্রতিবেশী মোকতেজা, ইতি ও রাশিদা জানান, ঘটনার পর তিন সন্তান বৃষ্টি, মেঘলা ও রিফাতের চিৎকারে এগিয়ে এসে খাজিদাকে উদ্ধার করেন তারা। তবে ওই সময় শাশুড়ি মনোয়ারা, ননদ সাফিয়া ও আরেফা দাঁড়িয়ে ছিল কিন্তু উদ্ধারে এগিয়ে আসেনি।

বক্তারপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের সদস্য আছমত আলী জানান, ঘটনার পর আহত খাজিদা ও তার সন্তানদের সাথে কথা বলেছি। তারা শাশুড়ি ও দুই ননদের প্রতি অভিযোগ করেছে। ওই ঘটনার পর থেকে শাশুড়ি ও ননদদ্বয় পলাতক।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মো. আবুবকর মিয়া জানান, ঘটনার পর ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষে থানায় কেউ অভিযোগ না করলেও ঘটানাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। সে সময় ভুক্তভোগী পরিবারকে থানায় অভিযোগ দায়েরের পরামর্শ দেয়া হলেও অভিযোগ করেনি। শুনেছি অগ্নিদগ্ধ ওই গৃহবধূ ঢামেকে মৃত্যুবরণ করেছেন। এ ব্যাপারে অভিযোগ দিলে হত্যা মামলা হবে বলেও জানান ওসি।

আব্দুর রহমান আরমান/বিএ

আপনার মতামত লিখুন :