অনুমোদন ছাড়াই চলছে হাসপাতাল, ডাক্তার-নার্স কেউ নেই

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফরিদপুর
প্রকাশিত: ০৯:৩২ পিএম, ১৪ জানুয়ারি ২০২০

ফরিদপুর শহরের বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতাল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) দুপুর ১২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত শহরের বিভিন্ন স্থানে অবস্থিত বেসরকারি হাসপাতাল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে এ অভিযান পরিচালনা করেন এনডিসি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফরোজ শাহীন খসরু এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আসাদুর রহমান।

জানা যায়, শহরের সাফা মক্কা ক্লিনিক, প্রভাতী প্রাইভেট হাসপাতাল ও আলফা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন না থাকা, প্যাথলজিস্ট, ডাক্তার ও নার্স না থাকায় দুটি প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে থাকা তিন ব্যক্তিকে কারাদণ্ড ও একটি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়।

অভিযানকালে সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি জেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর বজলুর রশীদ খান ও কোতোয়ালি থানা পুলিশ ভ্রাম্যমাণ আদালতকে সহযোগিতা করেন।

faridpur-(2).jpg

জেলা প্রশাসনের এনডিসি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহীন আফরোজ খসরু বলেন, ফরিদপুর শহরের বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকের অনুমোদন না থাকা, এক্স-রে বিভাগের প্যাথলজিস্ট না থাকায়, সার্বক্ষণিক ডাক্তার ও নার্স না থাকা ও অপারেশন থিয়েটারের সুব্যবস্থা না থাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়।

তিনি আরও বলেন, অভিযানকালে সাফা মক্কা ক্লিনিকের শেয়ার হোল্ডার ও দায়িত্বে থাকা মো. এমরাত হোসেন বাবুকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। একই সঙ্গে প্রভাতী প্রাইভেট হাসপাতালের ম্যানেজার আইয়ুব হোসেন লাবু ও সুপারভাইজার মনজুরুল ইসলামকে তিন মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়। এছাড়া শহরের আলীপুরের আলফা ডায়াগনস্টিক সেন্টার কর্তৃপক্ষকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বি কে সিকদার সজল/এএম/এমএস