পার্টির মূল পতাকা আমরাই আঁকড়ে আছি : মেনন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি যশোর
প্রকাশিত: ০৯:২৩ পিএম, ১৭ জানুয়ারি ২০২০

বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেছেন, কমরেড অমল সেন ছিলেন কমিউনিস্ট ঐক্যের প্রতীক। তিনি সারা জীবন জনগণতান্ত্রিক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার জন্য সংগ্রাম করে গেছেন। সেই সংগ্রাম থেকে পার্টি এক চুল পরিমাণ বিচ্যুত হবে না। পার্টির মূল পতাকা আমরাই আঁকড়ে আছি, অন্যরা (মার্ক্সবাদী) ফেসবুক নেতা। সকলকে দীপ্ত শপথ নিতে হবে বিভাজনের বিরুদ্ধে, ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে, চক্রান্তের বিরুদ্ধে। আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে ষড়যন্ত্র ও বিভাজনের মোকাবেলা করতে হবে।

শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) বিকেলে যশোরের বাঘারপাড়ার বাকড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে কমরেড অমল সেনের ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রাশেদ খান মেনন বলেন, অমল সেন সব সময় কৃষকের ন্যায্য অধিকার আদায়ের সংগ্রামসহ শোষিত-বঞ্চিত মানুষের পক্ষে কাজ করে গেছেন। কৃষক যদি তার ধানের ন্যায্য মূল্য না পায় তাহলে কঠোর আন্দোলনে নামতে হবে। ধর্মঘট করে, হরতাল করে তাদের দাবি আদায় করতে হবে। এই পথ আমাদের দেখিয়ে গেছেন অমল সেন।

অমল সেন স্মৃতি রক্ষা কমিটির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা, ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য মোস্তফা লুৎফুল্লাহ, সংগঠনের সাবেক সম্পাদক আনিসুর রহমান মল্লিক, সুশান্ত দাস, মাহমুদুল হাসান মানিক, নূর আহম্মদ বকুল, কামরুল হাসান, অধ্যাপক নজরুল ইসলাম নিলু, যশোর জেলা কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু বক্কার সিদ্দিকী, সাধারণ সম্পাদক ছবদুল হোসেন খাঁন প্রমুখ।

এর আগে অতিথিবৃন্দ বাকড়িতে ওয়ার্কাস পার্টির সাবেক সভাপতি ও উপমহাদেশের কমিউনিস্ট আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা কমরেড অমল সেনের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও পুস্পমাল্য অর্পণ করেন। সেই সঙ্গে সমাধিতে ফুল দেন ওয়ার্কাস পার্টির গোপালগঞ্জ, সাতক্ষীরা, নড়াইল, মাগুরা জেলাসহ বিভিন এলাকার নেতৃবৃন্দ।

এদিকে কমরেড অমল সেনের সমাধিস্থল ঘিরে দুই দিনের লোকজ মেলা শুরু হয়েছে। প্রতি বছরের মতো এবারও অমল সেনের মৃত্যুবার্ষিকীতে স্মরণ সভার পাশাপাশি এই মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলা ঘিরে মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে গোটা বাকড়ি এলাকা।

প্রসংঙ্গত, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির মধ্যে বিভক্তি দেখা দেয়ায় শনিবার (১৮ জানুয়ারি) একই স্থানে ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্ক্সবাদী) পক্ষের নেতৃবৃন্দ কমরেড অমল সেনের মৃত্যুবার্ষিকী পালন করবেন বলে জানা গেছে।

মিলন রহমান/আরএআর/পিআর