আকস্মিক পানি বৃদ্ধি, ডুবে গেছে চরাঞ্চলের ফসলি ক্ষেত

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফরিদপুর
প্রকাশিত: ০৯:৩০ পিএম, ৩০ জুন ২০২০

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা পদ্মা নদীতে গত দু’দিন আকস্মিক পানি বৃদ্ধির ফলে চরাঞ্চলের প্রায় ৪শ একর বিভিন্ন ফসলি ক্ষেত ডুবে গেছে।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) উপজেলা পদ্মা নদীর পানি বিপৎসীমার ১৮ সে.মি. ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে ফরিদপুর পাউবো সূত্রে জানা গেছে।

উপজেলা পদ্মা নদীর চরহরিরামপুর ইউনিয়ন ও চরঝাউকান্দা ইউনিয়নের ফসলী ক্ষেতের পাকা ও আধাপাকা তিল, আউশ ধান, পাট ও বাদাম পানিতে ডুবে রয়েছে। একই সাথে চরাঞ্চলে আবাদী গো-খাদ্য ঘাসও পানিতে ডুবু ডুবু অবস্থায় রয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বাররা জানিয়েছেন।

উপজেলার চরহরিরামপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আমির হোসেন খান জানান, পদ্মা নদীতে আকস্মিক পানি বৃদ্ধির ফলে ইউনিয়নের চরশালেপুর মৌজা, ভাটি শালেপুর আমিন খার ডাঙ্গী গ্রাম, আঃ হাই খানের হাট এলাকা, ছমির বেপারীর ডাঙ্গী গ্রাম ও আরজখার ডাঙ্গী গ্রামের প্রায় ৩শ একর ফসলি মাঠ পানিতে প্লাবিত হয়ে বেশিরভাগ ফসলি জমি ডুবে গেছে। একই সাথে চরাঞ্চলের বিভিন্ন কাচা রাস্তা পানির চাপে ধসে যাচ্ছে বলেও তিনি জানান।

উপজেলার চরঝাউকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ফরহাদ হোসেন মৃধা জানান, ইউনিয়নের চরকল্যানপুর মৌজা, দিয়ারা গোপালপুর ও চর কালকিনিপুর মৌজার প্রায় একশ একর জমির পাকা ও আধাপাকা বিভিন্ন মৌসুমী ফসল পানিতে ডুবে রয়েছে। এতে কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়েছে।

উপজেলার চর কল্যাণপুর মৌজার কৃষক শহীদ মুন্সি (৫৫) জানান, মাত্র দু’দিনে পদ্মার পানি বৃদ্ধি পেয়ে আমার চার বিঘা জমির পাকা আউশ ধান পানিতে ডুবে গেছে। আর মাত্র এক সপ্তাহ সময় পেলে প্রায় ৪০ মণ আউশ ধান মাঠ থেকে কেটে নিয়ে ঘরে তুলতে পারতাম। কিন্তু পদ্মার পানি দ্রুত বৃদ্ধির ফলে মাঠের ফসল তোলা সম্ভব হয়নি।

চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এজিএম বাদল আমিন জানান, উপজেলার চরঝাউকান্দা ইউনিয়নের চর কল্যানপুর মৌজায় তার নিজস্ব আবাদি ২০ বিঘা জমির পাকা তিল ও ৫ বিঘা জমির আউশ ধান পানিতে ডুবে গেছে। আকস্মিক পানি বৃদ্ধির ফলে এ বছর চরাঞ্চলের কৃষকরা বেশি মাত্রায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে তিনি জানান।

বি কে সিকদার সজল/এমএএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]