ছাদ থেকে পড়ে মায়ের মৃত্যু, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেল কোলের শিশু

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি গাইবান্ধা
প্রকাশিত: ১০:২৯ পিএম, ১১ জুলাই ২০২০

 

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার করতোয়া নদীতে গোসল করতে গিয়ে পানিতে ডুবে রিতু খাতুন (১২) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। পাশাপাশি পলাশবাড়ী উপজেলায় হাতি দেখতে গিয়ে বাড়ির ছাদ থেকে পড়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে জাহানারা বেগম (৩৪) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার (১১ জুলাই) বিকেলে গোবিন্দগঞ্জ পৌর এলাকার বরনপুর গ্রামের করতোয়া নদীতে গোসল করতে গিয়ে রিতু খাতুনের মৃত্যু হয়। রিতু খাতুন ওই গ্রামের আবু বক্কর শেখের মেয়ে।

গোবিন্দগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ইনচার্জ মতিউর রহমান বলেন, রিতু খাতুনসহ কয়েকজন করতোয়া নদীতে বিকেলে গোসল করতে যায়। এ সময় পানির স্রোতে ভেসে যায় রিতু। স্থানীয়রা ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

অপরদিকে, পলাশবাড়ীতে হাতি দেখতে গিয়ে বাড়ির ছাদ থেকে পড়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে জাহানারা বেগমের মৃত্যু হয়। এ সময় তার কোলে থাকা এক বছরের ছেলে শাহাদত অলৌকিকভাবে বেঁচে যায়। শনিবার বেলা ১১টার দিকে পলাশবাড়ী উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের দিঘলকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জাহানারা বেগম ওই গ্রামের আবু মিয়ার মেয়ে ও হাফিজার রহমানের স্ত্রী।

পলাশবাড়ী থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) সঞ্জয় সাহা বলেন, তিন সন্তানের জননী জাহানারা বেগম কয়েকদিন আগে বাবার বাড়ি দিঘলকান্দি গ্রামে বেড়াতে আসেন। শনিবার সকালে বাড়ির সামনের রাস্তা দিয়ে হাতি যাচ্ছিল। জাহানারা কোলের সন্তানকে নিয়ে ওই হাতি দেখার জন্য বাবার বাড়ির পাশের নির্মাণাধীন দোতলা ভবনের ছাদে ওঠেন। হাতি দেখতে গিয়ে ছাদের পাশে গেলে পা পিছলে বাড়ির পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া পল্লী বিদ্যুতের তার আঁকড়ে ধরেন।

এতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে সন্তানসহ নিচে পড়ে যান তিনি। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক জাহানারাকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে ছাদ থেকে পড়েও বেঁচে যায় জাহানারার কোলের এক বছরের ছেলে সন্তান শাহাদত। শিশুটি বর্তমানে নিজ বাড়িতে সুস্থ আছে।

জাহিদ খন্দকার/এএম/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]