পুলিশের সোর্স সন্দেহে গাছে ঝুলিয়ে যুবককে পেটাল মাদক কারবারিরা

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি কালীগঞ্জ (গাজীপুর)
প্রকাশিত: ০৮:২৫ পিএম, ০৪ আগস্ট ২০২০
আহত জিতু

গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলায় মাদক ব্যবসায় সহযোগিতা না করায় পুলিশের সোর্স সন্দেহে মো. তারিকুল বাগমার ওরফে জিতু বাগমার (৩০) নামের এক যুবককে গাছে ঝুলিয়ে পেটালেন তিন মাদক কারবারি।

উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের জামালপুর বাগমারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জিতু বাগমারের বাবা সিরাজ উদ্দিন বাগমার তিন মাদক কারবারির নামে ও অজ্ঞাত দুইজনকে আসামি করে মামলা করেন। এ মামলায় একজনকে গ্রেফতার করে গাজীপুর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার (০৪ আগস্ট) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কালীগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি একেএম মিজানুল হক।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মো. মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ৬ জুন রাতে কালীগঞ্জ থানা পুলিশের অভিযানে উপজেলার জামালপুর গ্রামের ১১ মাদক মামলার আসামি দুলাল বাগমার, একই এলাকার মাদক কারবারি মোফাজ্জল ও সাইদুল ইসলাম লিপুকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১৪০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। পরে তাদের গাজীপুর আদালতে পাঠানো হয়। ওই তিনজন জামিনে ছাড়া পেয়ে ৩০ জুলাই রাত ২টার দিকে জিতু বাগমারকে বাড়ি থেকে তুলে নেয়। এরপর জিতুকে গাছে বেঁধে বেধড়ক মারধর করে তারা। এতে মারাত্মক আহত হয় জিতু। বর্তমানে জিতু কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছে।

মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায়, হাসপাতালের পুরুষ ওয়ার্ডে শুয়ে কাতরাচ্ছেন জিতু। প্রতিবেদককে দেখে তিনি হাউ-মাউ করে কেঁদে ওঠেন। এ সময় তিনি বলেন, মাদক ব্যবসায় সহযোগিতা না করায় আমার কি অবস্থা করেছে তারা। তারা ভেবেছে পুলিশকে তথ্য দিয়ে আমি তাদের ধরিয়ে দিয়েছি। আমি এর বিচার চাই।

কালীগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি একেএম মিজানুল হক বলেন, এ ঘটনায় জিতুর বাবা থানায় মামলা করেছেন। এরই মধ্যে মোফাজ্জলকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।

আব্দুর রহমান আরমান/এএম/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]