বিয়ে দেয়ার আশ্বাসে ডেকে এনে দলবেঁধে ধর্ষণ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি শরীয়তপুর
প্রকাশিত: ০৭:৩৬ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০২১

শরীয়তপুরের নড়িয়ায় বেতের ঝোপে নিয়ে ৩১ বছর বয়সের এক নারীকে দল বেঁধে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় মামলার পর শুক্রবার (১৫ ডিসেম্বর) ভোরে মামলার ২ ও ৩নং আসামিকে গ্রেফতার করেছে নড়িয়া থানা পুলিশ।

গ্রেফতাকৃতরা হলেন, নড়িয়া উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের মালতকান্দি গ্রামের বকসু ফকিরের ছেলে শুভ ফকির (২৫) ও আজিজুল কাজির ছেলে আরিফ কাজি (২৪)। এর আগে বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) রাতে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে নড়িয়া থানায় মামলা করেন।

মামলার সূত্রে জানা গেছে, ভুক্তভোগী গত ২৪ অক্টোবর রাজনগর ইউনিয়নের ঠাকুকান্দি গ্রামের মোতালেব মালতের ছেলে রাশেদ মালতের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে (ধর্ষণ) মামলা করেন। সেই মামলা উত্তোলন ও মিমাংসার জন্য বর্তমান মামলার প্রধান আসামি বিল্লাল কাজি (৩৫) মাঝে মধ্যেই তাকে ফোন দিতেন। বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) বিল্লাল কাজি ভুক্তভোগী নারীকে ফোন করে রাজনগর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলীউজ্জামান মীর মালত ও তার ছেলে সজিব মীর মালতের উপস্থিতিতে রাশেদ মালতের সঙ্গে বিয়ে পড়ানোর কথা বলেন।

বিয়ের আশ্বাসে বিকেল ৫টার দিকে তিনি রাশেদ মালতের বাড়ি গিয়ে অপেক্ষা করেন। তবে চেয়ারম্যান ও তার ছেলে এলাকায় না থাকায় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বিল্লাল, আরিফ ও শুভসহ অজ্ঞাত ২/৩জন তাকে বাড়ির পূর্বপাশের সরিষা খেত সংলগ্ন বেতের ঝোপে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান বলেন, ভুক্তভোগী তিনজনকে আসামি করে মামলা করেছেন। মামলার ২ ও ৩ নং আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্য আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে। মেডিকেল পরিক্ষার জন্য তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মো. ছগির হোসেন/এএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]