নারায়ণগঞ্জে মহাসড়কে ৬ ঘণ্টা পর যান চলাচল শুরু

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০১:০৭ এএম, ২৫ মে ২০২২

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে শ্রমিকদের মহাসড়ক অবরোধের ছয় ঘণ্টা পর যান চলাচল শুরু হয়েছে। পরিস্থিতি এখন পুরোপুরি স্বাভাবিক বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৪ মে) বিকেল ৩টার দিকে আড়াইহাজারে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে কয়েক হাজার পাওয়ারলুম শ্রমিক। এ সময় উপজেলার রামচন্দ্রী, কড়ইতলা ও বিশনন্দী এলাকার ঢাকা-বিশনন্দী ফেরিঘাট আঞ্চলিক মহাসড়কে বিক্ষোভ করে শ্রমিকরা।

পরে রাত পৌনে ৯টায় পুলিশ ধাওয়া দিয়ে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শ্রমিকরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এ সময় তারা একটি বাস, প্রাইভেটকার ও কয়েকটি দোকান ভাঙচুর করে।

পুলিশ জানিয়েছে, শ্রমিকরা মহাসড়ক ত্যাগ করার পর আবারও যান চলাচল শুরু হয়েছে।

শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, নরসিংদী ও আড়াইহাজার এলাকার কয়েক শতাধিক পাওয়ার লুম (সুতা থেকে গ্রে কাপড় তৈরির কারখানা) আছে। এখানে কয়েক হাজার শ্রমিক কাজ করে।

দীর্ঘদিন ধরেই প্রতি গজ গ্রে কাপড় তৈরির জন্য শ্রমিকরা দুই টাকা ২৫ পয়সা করে মজুরি পেয়ে আসছিল। কিন্তু সম্প্রতি নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের দাম বৃদ্ধির ফলে এই মজুরি দিয়ে শ্রমিকদের সংসার চালানো কষ্টকর হয়ে উঠেছে। এজন্য মালিকপক্ষের কাছে গজপ্রতি এক টাকা মজুরি বৃদ্ধির দাবি জানায় তারা।

গত এক মাস ধরে মজুরি বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে আসলেও মালিকপক্ষ তাতে রাজি না হওয়ায় গত ২১ মে প্রথম আন্দোলন শুরু করে শ্রমিকরা। ওইদিন আড়াইহাজার উপজেলার বাজারসহ আশেপাশের রাস্তায় এক ঘণ্টা বিক্ষোভ করেন তারা।

পরবর্তীতে ২২ ও ২৩ মে ধারাবাহিক আন্দোলন করে শ্রমিকরা। এরই প্রেক্ষিতে ২৪ মে বিকেলে মজুরি বৃদ্ধির বিষয়ে শ্রমিক, পুলিশ, জনপ্রতিনিধি ও মালিকপক্ষ যৌথভাবে বসে সমাধান করার আশ্বাস দেন। কিন্তু এদিন এ নিয়ে কোনো সভা বা সিদ্ধান্ত না হওয়ায় শ্রমিকরা বিক্ষোভ শুরু করে।

পরে রাত সাড়ে ৭টায় প্রথমে উপজেলার কড়ইতলা ও বিশনন্দী এলাকায় ধাওয়া দিয়ে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ। পরে রাত সাড়ে ৮টায় শ্রমিকরা রামচন্দ্রী এলাকায় একটি বাস ভাঙচুর করে। খবর পেয়ে পুলিশ রামচন্দ্রী এলাকায় আরেক দফা ধাওয়া দিয়ে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে।

পরে শ্রমিকরা গোপালদী বাজারে অবস্থান নিয়ে প্রাইভেটকার ও দোকান ভাঙচুর করে। পরে সেখানেও পুলিশ ধাওয়া দিয়ে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল হক হাওলাদার বলেন, পাওয়ারলুম শ্রমিকরা মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। রাত সাড়ে ৭টা পর্যন্ত শ্রমিকদের বুঝাতে চেষ্টা করি। কিন্তু শ্রমিকরা বিশৃঙ্খলা শুরু করলে তাদের ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় কাউকে আটক করা হয়নি। সড়কে যান চলাচল শুরু হয়েছে।

মোবাশ্বির শ্রাবণ/এমপি

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]