ইভিএম নিয়ে ড. জাফর ইকবালকে বিএনপির টুকুর চ্যালেঞ্জ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ১০:২৬ পিএম, ২৬ মে ২০২২
ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু

ইভিএম ইস্যুতে সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের একটি বক্তব্যকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য, সাবেক জ্বালানি ও বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

টুকু বলেন, ইভিএমের প্রোগ্রাম ম্যানুপুলেট (প্রভাবিত) করা সম্ভব। তাই নির্বাচন আঙুলের ছাপ ও সিল দিয়েই হতে হবে।

বৃহস্পতিবার ( ২৬ মে) বিকেলে সিলেটের বন্যাকবলিত কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ইছাকলস ইউনিয়নের পুটামারা বাজারে জেলা বিএনপি আয়োজিত ত্রাণসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

এর আগে বুধবার (২৫ মে) ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) স্বচ্ছতা নিয়ে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, প্রযুক্তিগতভাবে ইভিএম ভার্চুয়ালি ম্যানুপুলেট করা অসম্ভব

মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেছিলেন, ইভিএম ব্যবহারের আগে দেখে নেওয়া সম্ভব এটার ভেতরে কী আছে। কেউ বিশ্বাস করবে কি না সেটা তার ওপর নির্ভর করে। আমি রাজনৈতিক দলগুলোকে বলবো, আপনারা যদি আপনাদের মতো করে নির্বাচন করতে পারেন নতুন নির্বাচন কমিশন তৈরি করে, তাহলেও আপনারা এই মেশিনটা ব্যবহার করেন। এতে আপনাদেরই লাভ হবে।

জাফর ইকবাল আরও বলেন, আমি বলেছিলাম, খুলে দেখান সার্কিটগুলো। ইভিএমের ভেতরে আইসিগুলো যেভাবে বসানো আছে, সেখানে ভেতরে ঢুকে ম্যানুপুলেট করা ভার্চুয়ালি অসম্ভব। বিষয়টি কেউ বিশ্বাস করবে কি না সেটা তার ব্যাপার বা তাদের রাজনৈতিক ব্যাপার। আমি টেকনিক্যাল জিনিসটা বলছি। টেকনিক্যাল পয়েন্ট থেকে এর ভেতরে ম্যানিপুলেট করা অসম্ভব।

তবে জাফর ইকবালের এই বক্তব্যকে চ্যালেঞ্জ করেন বিএনপির সাবেক প্রতিমন্ত্রী ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। ইভিএমের প্রোগ্রাম ম্যানুপুলেট করা সম্ভব বলে জানান তিনি।

ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে টুকু বলেন, আকস্মিক বন্যায় সিলেটের মানুষ ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিএনপি মানুষের জন্য রাজনীতি করে, তাই জনগণের দুঃখ-দুর্দশায় জনতার পাশে থাকে। সিলেটের বন্যার্ত মানুষের দুঃখ আমরা অনুভব করতে পারি। তাই দেশনায়ক তারেক রহমানের নির্দেশে আপনাদের পাশে সাধ্যমতো সহযোগিতা নিয়ে দাঁড়িয়েছি।

তিনি বলেন, সরকার বন্যাকবলিতদের কাছে ত্রাণ পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়েছে। এই বন্যায় সরকারের কাউকে জনগণ পাশে পায়নি। তবে সরকারের কেউ কেউ বিয়ের সাজে নৌকা নিয়ে বন্যার্তদের দেখে গেছেন। আবার কোনো মন্ত্রী ত্রাণ দিয়ে ফটোশেসন শেষে আবার ত্রাণ ফিরিয়ে নিয়েছেন। এই কঠিন সময়ে সরকারের নীরবতায় সিলেটের বন্যার্ত মানুষের দুর্ভোগ বহুগুণে বৃদ্ধি পেয়েছে। বিএনপি মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা, ভোটাধিকার ফিরিয়ে দেওয়ার রাজনীতি করছে। নিজের অধিকার ফিরে পেতে ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে নামতে হবে।

jagonews24

সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির।

এতে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি মামুনুর রশীদ মামুন, সাবেক সহ-সভাপতি ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাহাব উদ্দিন, জেলা আহ্বায়ক কমিটির সাবেক সদস্য ইশতিয়াক আহমদ সিদ্দিকী, সিদ্দিকুর রহমান পাপলু, অ্যাডভোকেট হাসান আহমদ পাটোয়ারী রিপন, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম আহমদ প্রমুখ।

ছামির মাহমুদ/ইএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]