মেলার শেষ সময়ে ছাড়-অফারের হিড়িক

মো. শফিকুল ইসলাম
মো. শফিকুল ইসলাম মো. শফিকুল ইসলাম , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৫৪ পিএম, ২৭ জানুয়ারি ২০২০

২৫তম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা শেষ হতে আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। বিদায়ের ঘনঘটায় ক্রেতা-দশনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত মেলা প্রাঙ্গণ। শেষ মুহূর্তে বিক্রি বাড়াতে ছাড়-অফার বাড়িয়েছে স্টলগুলো।

ক্রেতাদের আকর্ষণে বিভিন্ন পণ্যে বিশেষ মূল্যছাড় দিচ্ছেন বিক্রেতারা। পণ্য ভেদে ১০ থেকে ৭০ শতাংশ পর্যন্ত নগদ মূল্যছাড়ের পাশাপাশি বিভিন্ন অফার দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। একটি কিনলে একটি ফ্রিসহ রয়েছে ‘রাজকীয়’, ‘গোল্ডেন’ ও ‘ফাটাফাটি' অফার। সব মিলিয়ে অফার আর ছাড়ের ছড়াছড়ি চলছে এখন বাণিজ্য মেলায়। বিভিন্ন ছাড়ে পণ্য কিনতে ভিড় করছেন ক্রেতা-দর্শনার্থীরা। আশানুরূপ ক্রেতা পেয়ে খুশি স্টলের মালিকরা। সোমবার ২৭তম দিন মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র।

মেলায় সবচেয়ে বেশি আগ্রহ দেখা গেছে স্টিল, অ্যালোমিনিয়াম ও প্লাস্টিকের তৈরি গৃহস্থালি সব জিনিসপত্র নানা ধরনের ইলেক্ট্রনিক পণ্য কুকার, জুস মেকার, জুস ব্লেন্ডার, ওভেন, রাইস কুকারসহ ঘর সাজানোর সামগ্রীসহ ফ্যাশেনেবল পোশাক ব্লেজার ও খাদ্যপণ্যে।

মেলায় ‘বেস্ট বাই’ এর প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন থেকে পণ্য কিনলে ক্রেতারা পাচ্ছেন ৩০ শতাংশ পর্যন্ত মূল্য ছাড়। এছাড়া ৩ হাজার টাকার ফার্নিচার কিনলে ঢাকার ভেতরে হোম ডেলিভারি ফ্রি।

আকর্ষণীয় ডিজাইনের নতুন নতুন বাহারি সব পণ্য নিয়ে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় হাজির হয়েছে দেশের জনপ্রিয় মেলামাইন ব্র্যান্ড ইটালিয়ানো। মেলা উপলক্ষে ইটালিয়ানো দিচ্ছে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত নগদ মূল্যছাড়। সেই সঙ্গে রয়েছে ৫০০ টাকার পণ্য কিনে থাইল্যান্ড, নেপাল ও কক্সবাজার ভ্রমণের সুবর্ণ সুযোগ। মেলার ৫২ নম্বর প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়নে পাওয়া যাচ্ছে ইটালিয়ানোর এসব অফার।

Mela

মেলায় ইটালিয়ানোর প্যাভিলিয়ন ইনচার্জ ইফতেখার নুর আলম জাগো নিউজকে জানান, ইটালিয়ানো একটি আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন পণ্যের ব্র্যান্ড। মেলায় মন মাতানো রঙ আর বাহারি সব ডিজাইনের প্রায় দুই হাজারের বেশি পণ্য প্রদর্শিত হচ্ছে।

মেলায় নতুন নতুন পণ্যের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আকর্ষণ সানি টুথব্রাশ উল্লেখ করে প্যাভিলিয়ন ইনচার্জ জানান, স্বাস্থ্যসম্মত এসব টুথব্রাশ ৫০ থেকে ৭৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সানি টুথব্রাশ দুটি কিনলে একটি ফ্রি দেয়া হচ্ছে। এছাড়া অন্যান্য পণ্যে ১৫ থেকে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত নগদ মূল্যছাড়ের পাশাপাশি রয়েছে আকর্ষণীয় অফার।

তিনি বলেন, মেলায় মাত্র ৫০০ টাকার পণ্য কিনলেই ক্রেতাকে দেয়া হচ্ছে একটি কুপন। র্যাফেল ড্রর মাধ্যমে সৌভাগ্যবান বিজয়ীরা পাবেন ঢাকা-ব্যাংকক-ঢাকা, ঢাকা-নেপাল-ঢাকা এবং ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা বিমান টিকিট।

মেলায় ব্লেজারে রাজকীয় অফার দিয়েছে সাইফা হ্যান্ডিক্রাফট। এই স্টলটির বিক্রয়কর্মী মো. আকাশ বলেন, মেলা উপলক্ষে ক্রেতাদের জন্য মাত্র ১২শ টাকায় রাজকীয় অফারের ব্লেজার বিক্রি করছি। এছাড়াও বিশেষ ছাড়ে ১৪শ থেকে ৪ হাজার টাকার মধ্যে ভালো মানের ব্লেজার রয়েছে।

বিক্রি প্রসঙ্গে তিনি জানান, প্রথম দিকে তেমন বিক্রি হয়নি। তবে ২০ তারিখের পর থেকে বিক্রি বেড়েছে। মেলার বাকিদিনগুলো বিক্রি আরও বাড়বে বলে প্রত্যাশা তার।

Mela

মেলায় ব্লেজার কিনতে আসা ওবায়দুর রহমান জানান, প্রতিবছর মেলার শেষদিকে ব্লেজারের বিভিন্ন অফার দেয়। তাই ব্লেজার কিনতে মেলায় এসেছি। দেখছি পছন্দ আর দামে বনলে কিনবে।

মেলায় পাঁচ শতাধিক খাদ্যপণ্য নিয়ে হাজির হয়েছে দেশের অন্যতম খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ প্রতিষ্ঠান ‘প্রাণ’। প্রদর্শনের পাশাপাশি ভোক্তাদের চাহিদা ও পছন্দ বিবেচনায় রাখা হয়েছে ২০টির বেশি প্যাকেজ। ১২০ টাকা থেকে ১২৬০ টাকার এসব প্যাকেজে রয়েছে সর্বোচ্চ ২৬০ টাকা ছাড়। এ ছাড়া প্যাকেজের বাইরে পণ্য কিনলে ক্রেতারা পাবেন শতকরা ১০ শতাংশ ছাড়।

এছাড়া মেলায় বিভিন্ন অফার দিচ্ছে থ্রি-পিস বিক্রেতারা। এর মধ্যে ‘গোল্ডেন অফার’ নাম দিয়ে একাধিক প্রতিষ্ঠান মাত্র ৬শ থেকে ৭শ টাকায় তিন সেট থ্রি-পিস বিক্রি করছে। এর পাশাপাশি এক হাজার টাকা, ১২শ টাকা ও ১৫শ টাকার অফারেও তিন সেট থ্রি-পিস বিক্রি করা হচ্ছে।

তিন সেট থ্রি-পিস ৭শ টাকায় বিক্রি করছে এমন একটি প্রতিষ্ঠান ‘ছোয়া কালেকশন’। মেলার ভিআইপি গেট দিয়ে প্রবেশ করে একটু সামনে বামপাশে বিশাল আকারের এই স্টলটি দেখা যাবে। স্টলটিতে গোল্ডেন অফার লিখে একাধিক পোস্টার ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে তিন সেট থ্রি-পিস ৭শ টাকা। এছাড়া ফ্যামিলি অফারে এক সেট থ্রি-পিস ৪শ ৫০ টাকা ও তিন সেট এক হাজার ১শ টাকা।

Mela

বাণিজ্য মেলায় বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ফার্নিচারে মিলছে ৮ থেকে ১৫ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়। যেকোনো ফার্নিচার কিনলেই এ ছাড় পাওয়া যাচ্ছে, সঙ্গে মেলায় বুকিং দিলে ফ্রি হোম ডেলিভারি ব্যবস্থা রয়েছে।

মেলায় ৫০টি নতুন ডিজাইনের ফার্নিচার (আসবাব) প্রদর্শন করছে দেশের জনপ্রিয় ফার্নিচার ব্র্যান্ড রিগ্যাল। প্রতিষ্ঠানটির নান্দনিক ডিজাইনের সব ফার্নিচারে দেয়া হচ্ছে নানা ছাড় ও অফার।

মেলায় প্রধান ফটক থেকে ঢুকে হাতের ডানের দুই নম্বর প্যাভিলিয়নটি সাজিয়েছে রিগ্যাল। এতে নান্দনিক ডিজাইনের ফার্নিচারের মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের খাট, ওয়্যারড্রব, ড্রেসিং টেবিল, সোফা, সোফা কাম বেড, ডিভান, ডাইনিং টেবিল, বুক সেলফ ও এক্সক্লুসিভ রিডিং টেবিল। এসব ফার্নিচার তৈরি করা হয়েছে কাঠ, বোর্ড ও মেটাল দিয়ে।

রিগ্যাল ফার্নিচারের হেড অব মার্কেটিং দেবাশীষ সরকার বলেন, ‘বাণিজ্য মেলায় দর্শনার্থীদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে ফার্নিচার। এ কারণে ক্রেতাদের পছন্দ বিবেচনায় রেখে আমরা ডিজাইন ও নকশায় বৈচিত্র্য এনেছি। এবারের মেলায় আমরা দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয় ডিজাইনের বেড, ডাইনিং সেট, ডিভান, আলমিরাসহ ৫০টি নতুন পণ্য প্রদর্শন করছি।’

Mela

তিনি জানান, পণ্য ভেদে এসব ফার্নিচারে দেয়া হচ্ছে ১০-২০ শতাংশ ছাড়। তাছাড়া গ্রামীণফোনের স্টার গ্রাহকদের জন্য রয়েছে অতিরিক্ত ৫ শতাংশ ছাড়। রিগ্যাল ফার্নিচারে রয়েছে এক বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টি। এ ছাড়া মেলা থেকে রিগ্যাল ফার্নিচারের পণ্য কিনলেই থাকছে ফ্রি হোম ডেলিভারির ব্যবস্থা।

মেলায় ব্রাদার্স ফার্নিচার, নাদিয়া ফার্নিচার, পারটেক্স ফার্নিচার, নাভানা ফার্নিচার, আক্তার ফার্নিচার, ডেল্টা ফার্নিচার দিচ্ছে সর্বোচ্চ ১৫ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়। এছাড়া মেলায় বিকাশ অ্যাপে মূল্য পরিশোধ করলে ৫ শতাংশ ক্যাশব্যাক পাওয়া যাবে।

মেলায় ভিশন ইলেকট্রনিক্স পণ্য কিনলে পাওয়া যাচ্ছে ২০ শতাংশ ছাড়। সঙ্গে বিভিন্ন উপহারসহ লটারির মাধ্যমে ক্রেতা পাবেন ঢাকা-মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড কিংবা ঢাকা-কক্সবাজার এয়ার টিকিট ফ্রি।

ভিশন ইলেকট্রনিকস-এর মহাব্যবস্থাপক (বিপণন) মাহবুবুল ওয়াহিদ বলেন, বাণিজ্য মেলার দুই নম্বর প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়নটির দ্বিতীয় তলা সাজানো হয়েছে ভিশন ইলেকট্রনিক্সের প্রায় ১২০টি পণ্য দিয়ে। এর মধ্যে মেলা উপলক্ষে ২০টির বেশি নতুন পণ্য প্রদর্শন করা হচ্ছে। সর্বনিম্ন ৪০০ থেকে সর্বোচ্চ ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা মূল্যের পণ্য। তাছাড়া মেলা থেকে ওভেন, এয়ার কন্ডিশনার, ওয়াশিং মেশিন, ফ্রিজ, টেলিভিশন কিনলে সারাদেশে ফ্রি হোম ডেলিভারি দেয়া হচ্ছে। এছাড়া মেলায় ক্রেতারা ভিশন পণ্য কিনলেই পাচ্ছেন সর্বনিম্ন ১০ থেকে সর্বোচ্চ ২০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়।

Mela

বরাবরের মতো এবারও বছরের প্রথম দিন ১ জানুয়ারি শুরু হয় বাণিজ্য মেলা। মাসব্যাপী এ বাণিজ্য মেলা উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে। টিকিটের দাম এ বছর প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ৪০ টাকা এবং অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ২০ টাকা।

এবারের মেলায় স্টল/প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ৪৮৩টি। এর মধ্যে বিভিন্ন ক্যাটাগরির প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ১১২টি, মিনি প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ১২৮টি এবং বিভিন্ন ক্যাটাগরির স্টলের সংখ্যা ২৪৩টি। এর মধ্যে বিদেশি প্যাভিলিয়ন ২৭টি, বিদেশি মিনি প্যাভিলিয়ন ১১টি এবং বিদেশি প্রিমিয়ার স্টলের সংখ্যা ১৭টি।

এবারের মেলায় বাংলাদেশের পাশাপাশি থাইল্যান্ড, ইরান, তুরস্ক, নেপাল, চীন, মালয়েশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, পাকিস্তান, হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, জার্মানি, অস্ট্রেলিয়া, ভুটান, ব্রুনাই, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইতালি ও তাইওয়ানের প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে।

এসআই/জেএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]