রাজমিস্ত্রী মাসুদের স্বপ্ন ছেলে সরকারি চাকরি করবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:০২ পিএম, ৩০ জুলাই ২০২২

আমি শারীরিকভাবে অনেক খাটো। আমার বড় ছেলেটাও খাটো। আমি ও আমার ছেলেকে নিয়ে মানুষ নানা কটূক্তি করে। তারা বলে, খাটো মানুষ, কেন পড়ালেখা করাই? কিন্তু আমার স্বপ্ন হলো আমার ছেলে সরকারি চাকরি করবে। তাই কষ্ট করে আমার ছেলে দুইটাকে পড়ালেখা করাচ্ছি।

শনিবার (৩০ জুলাই) সকালে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) ছেলেকে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা দিতে নিয়ে আসা মো. মাসুদ মিয়া এসব কথা বলেন।

রাজমিস্ত্রীর হেল্পার হিসেবে কাজ করা মো. মাসুদ মিয়া জাগো নিউজকে বলেন, আমার বাড়ি নরসিংদীর পলাশে। স্ত্রী ও দুই ছেলেকে নিয়ে আমার পরিবার। বড় ছেলে আল আমিনকে আজ গুচ্ছ পরীক্ষা দিতে নিয়ে এসেছি। বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাশ করেছে। আর ছোট ছেলেটাও বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষা দেবে। বড় ছেলেটা আমার মতোই খাটো। কিন্তু পড়ালেখায় অনেক ভালো।

৪০ বছর বয়সী মাসুদ বলেন, খাটো মানুষ হওয়ায় অনেকে নানা কটূক্তি করে আমাকে ও ছেলেকে নিয়ে। ছেলেকে কেন পড়ালেখা করাচ্ছি, কী করবে পড়ালেখা করে, এসব নিয়েও মানুষ কথা বলে। এসব কথা শুনলে কিছুটা খারাপ লাগে। কিন্তু ছেলেটা যেহেতু খাটো, তাই পড়ালেখা করাচ্ছি যেন অন্তত কিছু করে খেতে পারে। তবে আমার স্বপ্ন হলো ভালোভাবে পড়ালেখা করে সরকারি চাকরি করবে।

আমি রাজমিস্ত্রির হেলপার হিসেবে কাজ করে অল্প টাকা পাই। তা দিয়েই কোনোমতে সংসার চালাই। দুই ছেলের লেখাপড়ার খরচের জন্য আমার শ্বশুরবাড়ির লোকজন কিছু সহযোগিতা করে, যোগ করেন মাসুদ।

মাসুদের স্ত্রী আলেয়া বেগমও এসেছেন তার সঙ্গে। জাগো নিউজকে তিনি বলেন, আমার ছেলেটা খাটো হলেও পড়ালেখায় ভালো। তাই কষ্ট করে পড়ালেখা করাচ্ছি। আমাদের অল্প আয়ে সংসার চালাতেই কষ্ট হয়। ‌তাই ছেলেকে ভর্তি পরীক্ষার জন্য কোনো কোচিংও করাতে পারিনি। আল্লাহ যেন আমার ছেলেকে চান্স পাওয়াইয়া দেয়।

‘ক’ ইউনিটের এবারের গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় জবিসহ নয়টি উপকেন্দ্রে ৬৪ হাজার ৪৫৮ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে ২২ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার ‘ক’, ‘খ’ ও ‘গ’- এই তিনটি ইউনিটে ২ লাখ ৯৪ হাজার ৫২৪ জন ভর্তিচ্ছু আবেদন করেছেন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি আবেদন পড়েছে বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটে। এই ইউনিটে এক লাখ ৬১ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষার জন্য আবেদন করেছেন।

অন্যদিকে, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত ‘গ’ ইউনিটে আবেদন পড়েছে সবচেয়ে কম। এই ইউনিটে আবেদন করেছেন ৪২ হাজারের কিছু বেশি শিক্ষার্থী। আর মানবিকের জন্য নির্ধারিত ‘খ’ ইউনিটে আবেদন করেছেন ৯০ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী।

আরএসএম/এমপি/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।