বৃষ্টি বন্যায় অচল কুয়েত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:১৪ পিএম, ১৫ নভেম্বর ২০১৮

গত কয়েকদিনের ভারী বর্ষণ ও আকস্মিক বন্যায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েত। বন্যা এমনই মারাত্মক আকার ধারণ করেছে যে, উপসাগরীয় অঞ্চলের ছোট এই দেশের সড়ক, সমুদ্র ও আকাশপথের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে সরকারি সব মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

বুধবার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, ভারী বর্ষণের কারণে রাজধানী কুয়েত সিটির কিছু রাস্তায় চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে। রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা কুয়েত নিউজ অ্যাজেন্সি (কুনা) বলছে, ভারী বৃষ্টিপাত এবং দৃষ্টিসীমা সর্বনিম্নে নেমে আসায় দেশের সবচেয়ে বড় সমুদ্রবন্দরের কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন : কুয়েতে ব্যাপক বৃষ্টিপাত, সরকারি ছুটি ঘোষণা

কুয়েতের বেসামরিক বিমান পরিবহন পরিচালকের দফতর বলছে, খারাপ আবহাওয়ার কারণে কুয়েতের বিমানের সব ধরনের উড্ডয়ন ও অবতরণ বাতিল করা হয়েছে। কুনা বলছে, কুয়েতগামী সব আন্তর্জাতিক ফ্লাইট সাময়িকভাবে সৌদির আরবের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ দাম্মাম ও বাহরাইনের রাজধানী মানামায় অবতরণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

দেশটিতে ভয়াবহ এই বন্যা দেখা দেয় এক সপ্তাহ আগে। এতে এখন পর্যন্ত একজনের প্রাণহানি ঘটেছে। বন্যায় নাগরিক ভোগান্তি নিরসনে ব্যর্থতার দায় নিয়ে দেশটির সরকারি কর্মবিষয়ক মন্ত্রী পদত্যাগ করেছেন।

আরও পড়ুন : কুয়েতে বন্যা মোকাবেলায় ব্যর্থ মন্ত্রীর পদত্যাগ

কুয়েতের আবহাওয়া বিভাগ বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে রেকর্ড ৩০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। যা গত কয়েকদিনের মধ্যে সর্বোচ্চ বর্ষণ। চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে দেশটির সব মন্ত্রণালয়ের পাশাপাশি সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। আবহাওয়া পরিস্থিতির উন্নতি না ঘটনায় স্কুল, কলেজ-সহ সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করছে সরকার।

kuwait

বার্তাসংস্থা রয়টার্স বলছে, বুধবার সরকারি মালিকানাধীন পেট্রোলিয়াম কোম্পানি কুয়েত পেট্রোলিয়ামের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। দেশটিতে ভারী বৃষ্টিপাতের ধকল সামলানোর মতো পর্যাপ্ত অবকাঠামো নেই। অপ্রত্যাশিত ঝড়, বৃষ্টি ও বন্যা মোকাবেলায় মধ্যপ্রাচ্যের অধিকাংশ দেশকে রীতিমতো লড়াই করতে হয়।

আরও পড়ুন : সৌদিতে বন্যায় নিহত ৩০

এই অঞ্চলের অধিকাংশ দেশ মরুভূমিতে অবস্থিত হওয়ায় এই সঙ্কট তৈরি হয়। তিউনিশিয়া, কাতার, জর্ডানও সম্প্রতি ভারী বর্ষণ ও বন্যার কবলে পড়েছে। অক্টোবরের শেষ ও নভেম্বরের শুরুর দিকে জর্ডানে ভয়াবহ বন্যায় ৩০ জনের বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটে। এ ঘটনার জেরে দেশটির শিক্ষা ও পর্যটনবিষয়ক মন্ত্রী পদত্যাগ করতে বাধ্য হন।

সূত্র : মিডল ইস্ট আই।

এসআইএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :