কুকুর ভেবে ভাল্লুক পুষছিলেন গায়িকা, অতঃপর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৪৪ পিএম, ১৪ জুন ২০১৯

সুর, তাল সম্পর্কে তার যথেষ্ট ধারণা রয়েছে। কিন্তু কুকুর আর ভাল্লুকের মধ্যে ফারাকটা বুঝে উঠতে পারেননি তিনি। এজন্য মাশুলও দিতে হয়েছে তাকে। কুকুর ভেবে বাড়িতে ভাল্লুক পুষে বন্যপ্রাণি সংরক্ষণ আইন ভাঙার অপরাধে গ্রেফতার হতে হলো এক সেলিব্রিটি গায়িকাকে।

ঘটনাটি ঘটেছে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে। দিন দুয়েক আগে মালয়েশিয়ার জনপ্রিয় গায়িকা জারিথ সোফিয়া ইয়াসিনের বাড়িতে বন্যপ্রাণি দফতর এবং পেনিনসুলারের চিড়িখানা কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে অভিযান চালায়। গায়িকার বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয় ভাল্লুকটিকে। ইয়াসিনের বাড়ি থেকে ভাল্লুক উদ্ধারের সময় সেটার ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দেন গায়িকার এক প্রতিবেশি।

এরপর বিপত্তি এই ছবিকে ঘিরে। ছবি ভাইরাল হতেই বন্যপ্রাণিকে বিক্রির উদ্দেশ্যে বাড়িতে ভাল্লুকটিকে আটকে রাখার অভিযোগ ওঠে ইয়াসিনের বিরুদ্ধে। ইয়াসিনের দাবি, তিনি এই ভাল্লুক ছানাটিকে সুস্থ করতে চেয়েছিলেন। প্রাণিটি সুস্থ হয়ে উঠলেই এটিকে চিড়িয়াখানায় রেখে আসার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু তার আগেই গ্রেফতার হলেন তিনি।

সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ঘটনার কয়েক দিন আগে ২-৩ দিনের জন্য বেড়াতে গিয়েছিলেন গায়িকা। এই সময় ইয়াসিনের বন্ধ বাড়িতে একাই ছিল ভাল্লুকের ছানাটি। এই সময় তার প্রতিবেশিদের নজরে আসে বিষয়টি। এভাবে খবরটি পৌঁছে যায় বন্যপ্রাণি দফতর এবং পেনিনসুলারের চিড়িখানা কর্তৃপক্ষের কাছে। আর তারপরই এই বিপত্তি!

ফেসবুকে আপলোড করা ৬ সেকেন্ডের একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, গায়িকার বাসা থেকে জানালা দিয়ে উঁকি দিচ্ছে কালো রঙের একটি ভাল্লুক।

এসআর/এমকেএইচ