ওয়ানএমডিবি কেলেঙ্কারি : ৩০০ কোটি ডলার দেবে গোল্ডম্যান স্যাকস

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৪২ পিএম, ২৩ অক্টোবর ২০২০

মালয়েশিয়ার বহুল আলোচিত ওয়ানএমডিবি দুর্নীতি কেলেঙ্কারিতে নিজেদের ভূমিকা স্বীকার করে চলমান তদন্ত বন্ধে প্রায় ৩০০ কোটি মার্কিন ডলার দিতে রাজি হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বহুজাতিক ব্যাংক গোল্ডম্যান স্যাকস। এই দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের বিচার চলছে আদালতে।

ব্যাংকটির মালয়েশিয়ান শাখা বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে স্বীকার করেছে, মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় তহবিল ওয়ান মালয়েশিয়া ডেভেলপমেন্ট বেরহাদের (ওয়ানএমডিবি) অর্থ সংগ্রহের কাজ পেতে একশো কোটিরও বেশি ঘুষ দিয়েছিল তারা। গোল্ডম্যান দুর্নীতি ঠেকাতে তাদের প্রাতিষ্ঠানিক ব্যর্থতার কথাও স্বীকার করে নিয়েছে।

মার্কিন কর্মকর্তারা বলছেন, রেকর্ড পরিমাণ অর্থের এই সমঝোতা প্রমাণ করে যে বড় ধরনের বিশ্বব্যাপী বহুল আলোচিত একটি দুর্নীতিতে কেন্দ্রীয় ভূমিকা পালন করেছে গোল্ডম্যান স্যাকস।

যে বহুল আলোচিত দুর্নীতি ব্যাংকটির সুনাম মারাত্মকভাবে বিপন্ন করেছে সেই দুর্নীতি থেকে আপাতত নিজেদের মুক্ত করার জন্য সব মিলিয়ে এখন মার্কিন এই বিনিয়োগ ব্যাংকটিকে এই কেলেঙ্কারির জন্য এখন ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার পরিশোধ করতে হবে— যা ২০১৯ সালে ব্যাংকটির মোট মুনাফার দুই তৃতীয়াংশ।

গোল্ডম্যানের স্যাকসের পরিচালনা বোর্ড আরও বলেছে, অবসরপ্রাপ্ত প্রধান লয়েড ব্লাঙ্কফেইনসহ— যার নজরদারিতে এই কেলেঙ্কারিটি হয়েছে— কর্মকর্তাদের দেয়া ক্ষতিপূরণ পাওয়া যাবে ১৭৪ মিলিয়ন ডলার।

ব্যাংকটির এই পরিচালনা কর্তৃপক্ষ বিবৃতি দিয়ে বলেছে, ‘ওয়ানএমডিবি কেলেঙ্কারির ঘটনাটিকে প্রাতিষ্ঠানিক ব্যর্থতা হিসেবে বিবেচনা করছে বোর্ড। যা কোনোভাবেই প্রত্যাশিত নয়।’

গত ৮ আগস্ট মালয়েশিয়ার দুই বারের প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাককে আলোচিত ওয়ানএমডিবি দুর্নীতি মামলায় ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে ১২ বছরের কারাদণ্ড দেন দেশটির একটি আদালত। একই সঙ্গে তাকে প্রায় ৫ কোটি মার্কিন ডলার জরিমানা করা হয়। ২০০৯ সালে তিনি ক্ষমতায় থাকাকালীন এই তহবিল গঠিত হয়।

মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় তহবিল ওয়ানএমডিবির কোটি কোটি মার্কিন ডলারের দুর্নীতি কেলেঙ্কারি শুধু মালয়েশিয়ায় নয়, সারা বিশ্বেই আলোচিত। সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকসহ এই তহবিলের অর্থ তছরুপের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে মার্কিন ব্যাংক গোল্ডম্যান স্যাকস, নাজিবের সৎছেলেসহ অনেকে বিরুদ্ধে।

২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য ওয়ানএমডিবি নামে এই সার্বভৌম তহবিল গঠন করেছিলেন নাজিব নিজেই। বিদেশে অংশীদারির ব্যবসা ও বিনিয়োগের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতি ত্বরান্বিত করতেই এটা প্রতিষ্ঠা করা হয়। কিন্তু দুর্নীতি তহবিলকে উইপোকার মতো খেয়ে ফেলে।

এসএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]