জুয়ার আসরে স্ত্রী বাজি, সম্মতি না দেয়ায় এসিড নিক্ষেপ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:১৪ এএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০২০
প্রতীকী ছবি

বন্ধুদের সঙ্গে জুয়া খেলার সময় নিজের স্ত্রীকে বাজি রেখেছিলেন। জুয়ায় শর্ত ছিল, হারলে স্ত্রীকে গণধর্ষণে বাধা দিতে পারবেন না বন্ধুদের। আর খেলা শেষে তিনি হারলেনও। কিন্তু স্বামী চাইলেই স্ত্রী অন্যের শয্যাসঙ্গিনী হবেন এটা চিন্তা করা যায় না। অন্য আর দশ জন স্ত্রীর মতো তিনিও বেঁকে বসেন স্বামীর এই নির্লজ্জ প্রস্তাবে। তীব্র প্রতিবাদ করেন স্বামীর এই আচরণের।

ফলে অবাধ্য স্ত্রীকে ‘শায়েস্তা’ করতে স্ত্রীর শরীরে এসিড ঢেলে দেন ওই ব্যক্তি। যদিও পুলিশের জেরায় তিনি দাবি করেছেন, স্ত্রীকে ‘শুদ্ধ’ করতেই তার গায়ে অ্যাসিড ঢেলেছেন। ঘটনাটি ভারতের বিহারের ভাগলপুর জেলার। এই ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। খবর ভারতীয় গণমাধ্যমের।

ভাগলপুরের মোজাহিপুর থানার পুলিশ কর্মকর্তা রাজেশ কুমার ঝা গণমাধ্যমকে জানান, রোববার (১৩ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় অভিযুক্ত সোনু হরিজনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয়েছে। তার ভিত্তিতে পুলিশ গ্রেফতার করে। তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘ঘটনার সংবেদনশীলতার কথা মাথায় রেখে আমরা দ্রুত অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছি। ঘটনার তদন্ত চলছে। বাকি অভিযুক্তদেরও দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।’

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত সোনু জানান, এক মাস আগে তিনি জুয়ার আসরে বন্ধুদের কাছে বাজিতে হেরেছিলেন। ‘প্রতিশ্রুতি’ অনুযায়ী একমাসের জন্য নিজের স্ত্রীকে বন্ধুদের হাতে তুলে দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু স্ত্রী যেতে রাজি হননি। তার স্ত্রীর বয়ানের ভিত্তিতেই পুলিশ তার স্বামীকে গ্রেফতার করে। বাজি হেরে বন্ধুদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনে স্ত্রীকে যে পীড়াপীড়ি করেছিলেন, তা স্বীকার করে নেন সোনু।

স্ত্রীর অভিযোগ, এই ঘটনার পর শাশুড়ি তাকে জোর করে মোজাহিপুরের বাড়ির একটি ঘরে আটকে রেখেছিলেন। ঘটনা যাতে জানাজানি না হয়, সেই ভয়ে শাশুড়ি ঘর থেকে তাকে বেরোতে দিতে চাননি। ঘরেই তাকে প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছিলেন। শ্বশুরবাড়ির সকলের দৃষ্টি এড়িয়ে রোববার লোদিপুরে বাপের বাড়িতে আসার পরেই ঘটনার জানাজানি হয়।

এই ঘটনার পর ভুক্তভোগীর মা-বাবা মেয়েকে নিয়ে লোদিপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে তাদেরকে মোজাহিপুর থানায় পাঠিয়ে দেয়া হয়। সেখানেই মামলা দায়ের করেন ওই স্ত্রী। তারপর পুলিশ অভিযুক্ত সোনুকে গ্রেফতার করে।

এআরএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]