৫০০ রুপির নোট ভাঙাতে গিয়ে কোটিপতি বনে গেলেন রংমিস্ত্রি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:২৪ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০২২
লটারি জিতে রাতারাতি কোটিপতি বনে যান কেরালার এই রংমিস্ত্রি/সংগৃহীত ছবি

ভাগ্য যদি সহায় হয় তাহলে যে কেউ যেকোনো সময় কোটিপতি বনে যেতে পারেন। ভারতের কেরালা রাজ্যের এক ব্যক্তির সঙ্গে এমনই এক ঘটনা ঘটেছে। ৫০০ রুপির একটি নোট ভাঙানোর জন্য লটারি কিনে রাতারাতি ১২ কোটি রুপির মালিক হয়ে যান তিনি। কেরালার ওই ব্যক্তির নাম সদানন্দন, তিনি পেশায় একজন রংমিস্ত্রি।

ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানা যায়, ৫০০ রুপি নিয়ে বাজার করতে গিয়েছিলেন কেরালার কোট্টয়মের বাসিন্দা সদানন্দন ওলিপারাম্বিল। কিন্তু দোকানদার খুচরা না দেওয়ায় মহা বিড়ম্বনায় পড়েন তিনি। বাজারের কাছেই ছিল লটারির টিকিট বিক্রির একটি দোকান। সদানন্দন নোট ভাঙানোর জন্য কয়েক রুপি খরচ করে একটি লটারি কেনেন। এরপর তিনি অন্যান্য দিনের মতো বাজার করে বাসায় ফেরেন।

কিন্তু বিকেল গড়াতেই কোট্টয়ম এলাকায় হইচই পড়ে যায়। কারণ ওই এলাকারই একজন লটারির প্রথম পুরস্কার জিতেছেন। কিন্তু বিজয়ীকে সেটা তখনো কেউ জানতে পারেনি। সদানন্দন লটারির রেজাল্টের খবর শুনে আর দাঁড়িয়ে থাকেননি। বরং পকেটে রাখা টিকিটটি নিয়ে সরাসরি ওই লটারির দোকানের উদ্দেশ্যে চলে যান।

তখনো সদানন্দন আঁচ করতে পারেননি, যাকে নিয়ে এত হইচই সেই ব্যক্তি তিনি নিজেই। লটারির দোকানে টিকিটের নম্বর মেলাতেই আঁতকে ওঠেন সদানন্দন। ভালো করে আরও কয়েকবার টিকিটের নম্বর মেলান। মিলিয়ে দেখেন তার কেনা টিকিটই প্রথম পুরস্কার জিতেছে। যার মূল্য ১২ কোটি রুপি।

পেশায় রংমিস্ত্রি সদানন্দন যে জীবনের প্রথমবার লটারির টিকিট কিনে জিতেছেন এমন নয়। তিনি নিয়মিত লটারির টিকিট কিনতেন। তবে কোনোদিন খুব বেশি রুপি জিতেননি। প্রতিবেদন অনুযায়ী, সদানন্দন ১২ কোটি রুপি জিতলেও পুরো অর্থ তিনি পাবেন না। আয়কর কেটে প্রায় সাড়ে সাত কোটি রুপি হাতে পাবেন এই রংমিস্ত্রি।

এআরএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]