কোম্পানির লভ্যাংশ অনুমোদন ও পরিশোধের পদ্ধতি

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:৪০ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

কোম্পানি আইন নিয়ে আমাদের রয়েছে নানা জিজ্ঞাসা। একটি কোম্পানি গঠন করতে অবশ্যই অনুসরণ করতে হয় দেশের প্রচলিত আইন। কী সেসব আইন? এমন সব আইনি বিষয়ে সমাধান দেবেন অ্যাডভোকেট মো. নজরুল ইসলাম খান। আজ থাকছে কোম্পানির লভ্যাংশ (Dividend) অনুমোদন ও পরিশোধের পদ্ধতি প্রসঙ্গ।

>>লভ্যাংশ (Dividend) কোম্পানির সদস্যদের একটি যৌক্তিক প্রত্যাশা। লাভের (Profit) যে অংশ কোম্পানি সদস্যদের মধ্যে শেয়ারের হিস্যা অনুযায়ী বণ্টন করে তাকে লভ্যাংশ বলে। পরিচালক পরিষদ কোম্পানির আর্থিক বিবরণী পর্যালোচনা করে লভ্যাংশ সুপারিশ করতে পারেন। এই সুপারিশ বার্ষিক সাধারণ সভায় (Annual General Meeting) উপস্থাপন করা হয়। সদস্যরা অনুমোদন দিলে লভ্যাংশ সদস্যদের মধ্যে বণ্টন করা যায়।

পরিচালক পরিষদের সুপারিশ ও সাধারণ সভায় সদস্যদের অনুমোদন ছাড়া লভ্যাংশ বিতরণ বৈধ নয়। বরং তা অননুমোদিত পন্থায় কোম্পানির মূলধন হ্রাস (Capital Reduction) বলে বিবেচিত হয়। সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা কোম্পানিকে লভ্যাংশ ফেরত দিতে বাধ্য থাকবেন।

>>লাভ সম্পূর্ণ বণ্টন না করে একটি অংশ রিজার্ভ রাখা যায়। লভ্যাংশ সাধারণত কোম্পানির লাভ ও রিজার্ভ ফান্ড থেকে দেওয়া হয়।

>>লভ্যাংশ নগদ টাকা ও বোনাস শেয়ার হতে পারে। আপাতদৃষ্টিতে বোনাস শেয়ারের মূল্য সদস্যদের পরিশোধ করতে হয় না। বরং মূল্য পরিশোধিত বলে দেখানো হয়। মূলত বোনাস শেয়ার মূল্যের সমপরিমাণ টাকা কোম্পানি লাভ অথবা রিজার্ভ ফান্ড হতে শেয়ার ক্যাপিটাল অ্যাকাউন্টে পাঠায়। অর্থাৎ, বোনাস শেয়ার দেওয়ার মাধ্যমে কোম্পানি লাভ বা রিজার্ভ ফান্ডকে মূলধনে পরিণত করে।

সাধারণ সভায় লভ্যাংশ অনুমোদনের দুই মাসের মধ্যে পরিশোধ করতে হয়। স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত কোম্পানির ক্ষেত্রে ৩০ দিনের মধ্যে সদস্যদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে নগদ টাকা এবং বিও অ্যাকাউন্টে বোনাস শেয়ার পরিশোধ করতে হবে। পরবর্তী সাত কার্যদিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট স্টক এক্সচেঞ্জ ও সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনকে অবহিত করতে হবে।

>>লভ্যাংশ সাধারণ সভায় অনুমোদনের পর কোম্পানির জন্য ঋণ এবং সদস্যদের পাওনা বলে বিবেচিত হয়। পরবর্তীসময়ে লভ্যাংশ আর বাতিল করা যায় না। তবে দৈব ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে সদস্যের সম্মতিতে লভ্যাংশ বাতিল করা যেতে পারে মর্মে অনেকে মত প্রকাশ করেন।

jagonews24

মো. নজরুল ইসলাম খান
অ্যাডভোকেট, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট
ই-মেইল: [email protected]

এএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]