সঙ্গী আপনাকে ধোঁকা দিচ্ছে কি না বুঝবেন যেভাবে

লাইফস্টাইল ডেস্ক
লাইফস্টাইল ডেস্ক লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৩০ পিএম, ২৩ মে ২০২২

একটি সম্পর্ক গড়ে ওঠে বিশ্বাসের উপর। একে অন্যের উপর ভরসা না করলে সেই সম্পর্ক বেশিদিন টিকে না। এ কারণেই বর্তমানে সম্পর্ক টিকিয়ে রাখা বেশ কঠিন।

বেশিরভাগ মানুষই এখন সম্পর্কে প্রতরণা করেন। আর এ কারণে সঙ্গীর প্রতি বিশ্বাস রাখতে পারেন না কেউ কেউ। তবে সবাই তো আর এক প্রকৃতির নন।

তবে প্রিয়জন যখন কোনো না কোনোভাবে আপনাকে ধোঁকা দেয়, তখন কিছু না কিছু লক্ষণ দেখে অন্যজন ঠিকই ধরতে পারেন বিষয়টি। আবার কেউ কেউ ভালোবাসায় অন্ধ হওয়ায় প্রিয়জনের কোনো ভুলত্রুটিই তাদের চোখে পড়ে না।

তবে অনেক সময়ই দেখা যায়, আপনি যাকে এতদিন বিশ্বাস করেছিলেন তিনি মানুষ হিসাবে আদৌ ভালো নন। আপনার অজান্তে হয়তো তিনি অন্য কারও সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছেন।

এছাড়াও বিভিন্নভাবে বিশ্বস্ত মানুষটি আপনাকে ধোঁকা দিতে পারে। একটু সতর্ক থাকলেই আপনি কিন্তু তা ধরতে পারবেন। জেনে নিন কী কী লক্ষণে ধোঁকাবাজ সঙ্গীকে চিনবেন-

>> আপনার সঙ্গীও যদি বারবার সহানুভূতি চায়, তাহলে সতর্ক থাকুন। আসলে অনেকেই অন্যের সামনে বিশেষ সহানুভূতি দাবি করেন। এই ধরনের সহানুভূতিকে তারা আশ্রয় করেন অন্তরের বিভিন্ন খারাপ জিনিস লুকিয়ে রাখতে।

>> সঙ্গী যদি আপনাকে এড়িয়ে মুহূর্তেই অন্য কারও সঙ্গে বন্ধুত্ব করতে থাকেন, তাহলে বুঝবেন তার সমস্যা আছে। কারণ এভাবে অন্যদের সঙ্গে বন্ধুত্ব স্থাপন করা কিন্তু ভালো লক্ষণ নয়। সেই বন্ধুত্ব যদি গায়ে পড়া স্বভাবের হয় তাহলে তো আরও সতর্ক হতে হবে।

>> একটি সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে একে অপরের মধ্যে ভালোবাসা থাকা জরুরি। এমনকি পরস্পরের প্রতি ভরসাও রাখতে হবে। তবে অনেকেই সঙ্গীর বিশ্বাস অর্জন করতে বারবার মিথ্যা বলেন। আপনার সঙ্গীও যদি এমন স্বভাবের হন তাহলে সতর্ক হতে হবে।

>> মানুষের মধ্যে সততার অভাব থাকলে একে অপরের সঙ্গে মনগড়া কথা বলতে শুরু করেন। আপনার মন রাখার জন্য হোক বা নিজেকে ঢাকার জন্য যদি সঙ্গী মন গড়া কথা বলেন বা আপনাকে মানানোর চেষ্টা করেন তাহলে বুঝবেন কোনো সমস্যা আছে।

>> কিছু মানুষ ঘন ঘন সম্পর্ক বদলান। এমন মানুষের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর আগে দুইবার ভাবুন। সবারই উচিত সঙ্গীর অতীত সম্পর্কে জেনে বুঝে তবেই নতুন সম্পর্কে জড়ানো।

জেএমএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]