রাজধানীতে সৎ বাবার চড়ে শিশুর মৃত্যু

ঢামেক প্রতিবেদক
ঢামেক প্রতিবেদক ঢামেক প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:২১ পিএম, ১৪ মে ২০২২
ফাইল ছবি

রাজধানীর দক্ষিণখানের আশকোনা এলাকায় সৎ বাবার চড়-থাপ্পড় খেয়ে নামিরা ফারিজ (৩) নামের এক শিশু চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) দিনগত রাত ৩টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে শিশু মেডিসিন বিভাগের ২০৭ নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে।

দক্ষিনখান থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোছা. রোজিনা আক্তার বলেন, আমরা খবর পেয়ে ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেছি। পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

নিহতের মা তাসলিম জাহান ইমার বরাত দিয়ে তিনি আরও বলেন, গত বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে নামিরা ফারিজকে বাসায় রেখে জরুরি কাজে বাইরে যান তার মা। সে সময় তার সৎ বাবা আজহারুল ইসলাম বাসায় ছিলেন।

‘ওই সময় বাসার কাজের মেয়ে ফারিজকে খাবার খাওয়ানোর সময় জেদ করে সে। এ কারণে তাকে চড় মারেন আজহারুল। এতে শিশুটি দেয়ালে আঘাতপ্রাপ্ত হয়। পরে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে।’

এই ঘটনায় আজহারুলকে আটক করা হয়েছে জানিয়ে রোজিনা আক্তার বলেন, তার কাছ থেকে বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে। শিশুটির শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

শিশুটির মা তাসলিম জাহান ইমা বলেন, ছয় মাস আগে প্রেম করে আজহারুলকে বিয়ে করি। বিয়ের পর থেকে সে আমার সন্তানকে কিছুতেই সহ্য করতে পারতো না। আমি বাসা থেকে দরকারি কাজে বের হলে আমার কন্যাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে সে। আমি এই হত্যার সঠিক বিচার চাই।

তিনি আরও বলেন,আমাদের গ্রামের বাড়ি নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানার মদনগঞ্জ গ্রামে। আমি এখন দ্বিতীয় স্বামী আজহারুলকে নিয়ে দক্ষিনখান আশকোনার ৫৭১/১ নম্বর বাসায় থাকি।

কাজী আলামিন/এমপি/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]