শিগগির মোবাইল ডেটা রেট নির্ধারণ করা হবে: মোস্তাফা জব্বার

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৩৭ এএম, ২৭ নভেম্বর ২০২২

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, শিগগির বাংলাদেশের সব মোবাইল অপারেটরের জন্য একটি মোবাইল ডেটা রেট নির্ধারণ করা হবে। যাতে কোনো মোবাইল অপারেটর সাধারণ মানুষের থেকে আলাদাভাবে দায়িত্ব নিতে না পারে।

শনিবার (২৬ নভেম্বর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) অষ্টম আন্তর্জাতিক ফায়ার, সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি এক্সিবিশনের (আইএফএসএসই) সমাপনী দিনে ‘ডিজিটাল অ্যান্ড সাইবার সিকিউরিটি’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তৃতায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স (বিএফএসসিডি) যৌথভাবে তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক এক্সপোর আয়োজন করে ইলেকট্রনিক্স সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইএসএসএবি)।

মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে আমরা চারটি অপারেটরের জন্য মোবাইল ডেটা টাইম বাউন্ড নিশ্চিত করতে সক্ষম করেছি। আমরা সব অপারেটরের জন্য মোবাইল ডেটা রেট নির্ধারণ করার কথা ভাবছি যাতে কেউ জনগণের কাছ থেকে অতিরিক্ত চার্জ নিতে না পারে।

তিনি বলেন, এখন মানুষ মোবাইল ছাড়া চিন্তা করতে পারে না। এটি দৈনন্দিন জীবনের একটি বন্দর হয়ে ওঠে। তবে, আমাদের এর ব্যবহার এবং সাইবার নিরাপত্তা সমস্যা সম্পর্কে সচেতন হতে হবে। কারণ সাইবার ঝুঁকি দিন দিন বাড়ছে। সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে জনগণকে সচেতন করতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও ব্যবসায়ীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

তিনি বলেন, সরকার ফ্রিল্যান্সারদের জন্যও পেমেন্ট সিস্টেম সহজ করতে কাজ করছে। এখানে ব্যবসা করার জন্য প্যাপল এর জন্য বাংলাদেশের কোনো সীমাবদ্ধতা নেই। সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ পাস করেছে।

মন্ত্রী বলেন, আমি বাংলাদেশের ২৬ হাজার পর্ন সাইট এবং ৬ হাজার জুয়ার সাইট বন্ধ করে দিয়েছি। কেউ যদি আমাকে এগুলোর লিঙ্ক দেয় তাহলে আমি ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সাইটটি বন্ধ করে দেব। বিশ্বে বাংলাদেশ ৫ আইআরে নেতৃত্ব দেবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অনুষ্ঠানে সাইবার আসক্তি থেকে সবাইকে বেরিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন এফবিসিসিআই-এর আইসিটি বিষয়ক স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান মো. শহীদ উল মুনীর। তিনি বলেন, আমাদের ডিজিটাল গ্যাজেট ব্যবহার করা উচিত কিন্তু জ্ঞান অর্জনের আশায় এখানে বেশি সময় নষ্ট করা উচিত নয়। ইন্টারনেটে ইতিবাচক এবং নেতিবাচক জিনিস রয়েছে। আমাদের ইতিবাচক জিনিস নিতে হবে।

তিনি শিশু ও যুবকদের সঠিকভাবে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে এবং সাইবার ঝুঁকি থেকে বাঁচানোর জন্য অভিভাবকদের অনুরোধ জানান।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে ইসাব সভাপতি জহির উদ্দিন বাবর অগ্নি নিরাপত্তা ইস্যুতে সরকারকে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানান যাতে দেশ ও এর জনগণ সঠিকভাবে সুবিধা পায়।

ই-ক্যাবের পরিচালক ইমুন হক সজীব, বেকোর মহাসচিব তৌহিদ হোসেন, ইএসএসএবি কোষাধ্যক্ষ মো. মাহমুদ কে খোদা, পরিচালক প্রকৌশলী মো. মনজুর আলম প্রমুখ বক্তব্য দেন।

ইসাবের যুগ্ম মহাসচিব জাকির উদ্দিন আহমেদ সেমিনার পরিচালনা করেন এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এর মহাসচিব মাহমুদুর রশীদ। তিনি জানান, তিন দিনের এক্সপোতে প্রায় ১২৫০০ দর্শক এসেছেন। এক্সপোতে ১০০টির বেশি ব্র্যান্ড অংশ নিয়েছে এবং ৩০টি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে এসেছে।

তিনি আরও বলেন, আগের প্রদর্শনীর তুলনায় এ বছর আমরা মানুষের কাছ থেকে ভালো সাড়া পেয়েছি। আমরা আশা করছি যে আমরা এখানে আরও বড় এক্সপোর আয়োজন করতে পারবো, যাতে একটি নিরাপদ দেশ গড়তে আবাসিক ও বাণিজ্যিক ভবনে অগ্নি নিরাপত্তা সরঞ্জাম ব্যবহার করে মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করা যায়।

এমওএস/এমআইএইচএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।