হ্যান্ডসকম্বকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙলেন তাইজুল

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৫৬ এএম, ২৮ আগস্ট ২০১৭

দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই অজি অধিনায়ক স্মিথকে ফিরিয়ে লিডের স্বপ্ন দেখা বাংলাদেশের সামনে প্রতিরোধ গড়েন রেনশ-হ্যান্ডসকম্ব। দুইজনে মিলে গড়েন ৬৯ রানের জুটি। অবশেষে সেই জুটি ভাঙলেন তাইজুল। ৩৩ রান করা হ্যান্ডসকম্বকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে সাজঘরে ফেরান। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৫ উইকেট হারিয়ে ১০৩ রান। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে উইকেটে এসেছেন ম্যাক্সওয়েল। আর রেনশ ৪২ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন।

ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার দিনে শেষ বেলায় অস্ট্রেলিয়ার ৩ উইকেট নিয়ে বড় লিডের লক্ষ্যে দ্বিতীয় দিন শুরু করে বাংলাদেশ। আর দিনের শুরুতেই সবচেয়ে বড় বাধা স্মিথকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান মিরাজ। এগিয়ে এসে খেলতে গিয়ে বলে ব্যাটই ছোঁয়াতে পারেননি আইসিসি টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ এই ব্যাটসম্যান। আউট হওয়ার আগে স্মিথের ব্যাট থেকে আসে ৮ রান।

বাংলাদেশকে ২৬০ রানে থামিয়ে দিয়ে প্রথমদিনই ব্যাট করতে নামে অস্ট্রেলিয়া। একপাশ থেকে শফিউল আরেক পাশ থেকে মেহেদী হাসান মিরাজের হাতে বল দিয়ে অস্ট্রেলিয়া ইনিংসে আক্রমণের দায়িত্ব তুলে দিলেন অধিনায়ক মুশফিক।

ষষ্ঠ ওভারেই মিরাজের স্পিন বিষে নীল হলো অস্ট্রেলিয়া। ওভারের দ্বিতীয় বলেই মিরাজের বলে পুরোপুরি পরাস্ত হলেন ওয়ার্নার। আবেদন করতেই আঙুল তুলে দিলেন আম্পায়ার আলিমদার। তবে নিজের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিলেন ওয়ার্নার। এ কারণে রিভিউ চেয়ে বসলেন তিনি। রিভিউতে দেখা গেল, ব্যাটের কানায় লেগে প্যাডে আঘাত হেনেছে বল। সুতরাং আলিমদার নিজের ভুল স্বীকার করে নটআউট ঘোষণা করলেন।

পরের বলে আর কোনো সন্দেহ-সংশয়ের অবকাশ রাখলেন না মিরাজ। এবারও পুরোপুরি পরাস্ত ওয়ার্নার। এবারও জোরালো আবেদন। কোনো দ্বিধা না করে আবারও আঙ্গুল তুলে দিলেন আলিম দার। এবার আর রিভিউর আবেদনও করলেন না ওয়ার্নার। ৮ রান করে ফিরে গেলেন তিনি।

পরের ওভারে বোলিংয়ে আসলেন সাকিব আল হাসান। ওয়ার্নারের আউটে চাপে পড়া অস্ট্রেলিয়াকে আরও চেপে ধরলেন যেন তিনি। সাকিবের প্রথম বলেই দ্রুত সিঙ্গেল নিতে গিয়ে রানআউট হয়ে গেলেন নতুন উইকেটে আসা উসমান খাজা। রানের খাতাই খুলতে পারলেন না তিনি।

স্পিন ঘূর্ণি অব্যাহত রাখলেন সাকিব। উপমহাদেশের উইকেটে স্পিন যে কতটা বিষাক্ত সেটা তিনি আবারও বুঝিয়ে দিলেন অস্ট্রেলিয়ানদের। উসমান খাজা আউট হওয়ার পর অস্ট্রেলিয়া নাইটওয়াচম্যান (রাতের পাহারাদার) হিসেবে উইকেটে পাঠিয়েছিল নাথান লিওনকে। কিন্তু তিনিও সাকিবের ঘূর্ণি ফাঁদে পড়লেন। এলবি আউট হয়ে গেলেন কোনো রান না করেই।

১৪ রানেই দ্রুত পড়ে গেলো অস্ট্রেলিয়ার ৩ উইকেট। দারুণ চাপে পড়ে গেলো স্মিথের দল। শেষ পর্যন্ত ৯ ওভারে ৩ উইকেটে ১৮ রান তুলেই দিনের খেলা শেষ ঘোষণা করলেন আম্পায়াররা।

এমআর/পিআর