মাঠে নামার আগেই রেকর্ড মিঠুনের

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:১১ এএম, ১১ নভেম্বর ২০১৮

এক যুগ আগে ২০০৬ সালে প্রথমবারের মতো প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলেছিলেন ডানহাতি উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুন। দীর্ঘ ১২ বছর ধরে ঘরোয়া ক্রিকেটের সব টুর্নামেন্ট খেলার পরে অবশেষে অভিজাত টেস্ট ক্রিকেটের স্বদ পেয়েছেন ২৭ বছর বয়সী এ মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান।

এরই সাথে একটি রেকর্ডও গড়েছেন মিঠুন। অনভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের হুট করেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নামিয়ে দেয়ার যে দুর্নাম রয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের, তার ঠিক বিপরীত রেকর্ডে নাম লিখিয়েছেন মিঠুন। দেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলার পরে আন্তর্জাতিক টেস্ট ক্রিকেট খেলতে নামা ক্রিকেটার এখন মিঠুন।

২০১১ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে অভিষেকের আগে ডানহাতি টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান নাজিমউদ্দিন খেলেছিলেন ৮১টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ। এতোদিন ধরে এটিই ছিলো সবচেয়ে বেশি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলে বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট অভিষেক হওয়ার রেকর্ড।

ঢাকা টেস্টে এ রেকর্ড ভেঙে নতুন করে লিখলেন মিঠুন। এখনো পর্যন্ত মিঠুন খেলেছেন ৮৮টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ। ১২টি সেঞ্চুরি ও ২৪টি হাফসেঞ্চুরির মারে ৮৮ ম্যাচ থেকে ৩৫.৫৯ গড়ে ৪৭৭০ রান নিজের নামের পাশে লিখিয়ে রেখেছেন এ ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

মিঠুনের আগে সিলেট টেস্টে অভিষেক হয়েছিল ডানহাতি পেস বোলিং অলরাউন্ডার আরিফুল হকের। তিনিও তার প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন ২০০৬ সালে। অভিষেকের আগে তিনি খেলেছেন ৭৬টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ।

দেশের ইতিহাসের রেকর্ড হলেও বিশ্বের ইতিহাসের ধারে কাছেও থাকবেন না মিঠুন। কেননা ক্রিকেট বিশ্বে সবচেয়ে প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলার পরে আন্তর্জাতিক টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক হওয়ার রেকর্ড ৪২৩ ম্যাচের। ১৯০৬ সালে ইংল্যান্ডের হয়ে টেস্ট ক্রিকেটে নাম লেখানোর আগে ইউয়ার্ট অ্যাস্টিল ল্যাঙ্কাশায়ারের হয়ে খেলেছিলেন ৪২৩টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ।

সবচেয়ে বেশি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলে বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট অভিষেক:

মোহাম্মদ মিঠুন – ৮৮

নাজিমউদ্দিন - ৮১

আরিফুল হক - ৭৬

শামসুর রহমান - ৬৬

মার্শাল আইয়ুব - ৬২

আবু জায়েদ রাহি - ৬২

সানজামুল ইসলাম - ৬০

জহুরুল ইসলাম - ৬০

জিয়াউর রহমান - ৫৮

ইলিয়াস সানি - ৫৬

নাজমুল ইসলাম অপু - ৫৪

শুভাশিস রায় - ৫১

এসএএস/এমএস