‘রিয়াদ দারুণ আত্মবিশ্বাসী, তবে সম্ভাবনা ৫০-৫০’

আরিফুর রহমান বাবু
আরিফুর রহমান বাবু আরিফুর রহমান বাবু , বিশেষ সংবাদদাতা বার্মিংহাম থেকে
প্রকাশিত: ১১:৪১ পিএম, ২৫ জুন ২০১৯

যা হয়নি, তা নিয়ে হাজারো আফসোস আর অনুশোচনায় পুড়লেও কোন লাভ নেই। তার পরের করণীয় কাজগুলো ঠিকমতই হচ্ছে। আফগানদের চরমভাবে পর্যুদস্ত করা দরকার ছিল- সেটা ঠিকঠাক করে দেখিয়েছে মাশরাফিল দল।

মেঘে ঢাকা আকাশ, স্লথ ও খানিক টার্নিং উইকেট তথা অনেক প্রতিকূল অবস্থার মাঝেও গুলবাদিন, নবী, রশিদ, মুজিবদের বড় ব্যবধানে হারিয়ে এখন সেমির সম্ভাবনার প্রদীপ ঠিক জ্বালিয়ে রেখেছে টিম বাংলাদেশ। তবে সেরা চারে জায়গা পেতে পাড়ি দিতে হবে কঠিন পথ।

এখন সামনে বাঁধা দুই প্রতিবেশি ভারত আর পাকিস্তান। যদিও রবিন লিগের আট আর নয় নম্বর ম্যাচ, তবু পরিবেশ-পরিস্থিতির কারণে এই দুটি ম্যাচ এখন ‘নকআউট’ হয়ে গেছে টাইগারদের জন্য। একটি হারলেই অন্যটির গুরুত্ব যাবে কমে।

এখন তাই যত চিন্তাভাবনা, লক্ষ্য-পরিকল্পনা ভারতের বিপক্ষে ম্যাচকে নিয়ে। আগামী ২ জুলাই বার্মিংহামের এজবাস্টনে ভারতের সঙ্গে ম্যাচ এখন টাইগারদের এক অর্থে বাঁচা মরার লড়াই। যদিও আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয়ের পর ৮ দিন বিরতিতে পুরো দলকে পাঁচদিনের ছুটি দেয়া হয়েছে, তারপরও ক্রিকেটারদের চিন্তায় এখন শুধুই ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ।

আফগানিস্তানের সাথে খেলার পর সাকিব আল হাসান জনাকীর্ন সংবাদ সম্মেলনে বলে দিয়েছেন, ‘২ জুলাই ভারতের সঙ্গে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। আমরা মুখিয়ে আছি ভাল খেলতে। ভারতের বিরুদ্ধে নিজেদের সেরা ক্রিকেট উপহার দিতে হবে। আমরা সেরা খেলাটাই খেলতে চাই।’

‘চ্যাম্পিয়ন অলরাউন্ডার’ যথার্থই বলেছেন। ভারতের সঙ্গে সত্যিই অনেক গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। ঐ ম্যাচ হেরে গেলে সেমিতে খেলার সম্ভাবনা শেষ হয়ে যাবে অনেকটাই।

এখন প্রশ্ন উঠেছে, বাংলাদেশ আগামী ২ জুলাই এবারের বিশ্বকাপের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খেলায় পুরো শক্তিতে মাঠে নামতে পারবে? পায়ের কাফ মাসলে টান পড়া মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ কি ঐ ম্যাচ খেলতে পারবেন?

ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ জানালেন, ক্রিকেটারদের মধ্যে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে নাকি রিয়াদই সবচেয়ে বেশি উদ্যমী। সঙ্গে ম্যানেজার এটাও জানালেন, ‘রিয়াদ খেলতে পারবে, এমনটা জোর দিয়ে বলা যাচ্ছে না। তার খেলা নিয়ে আসলে আমি নিজেই নিশ্চিত না। বাংলাদেশ ম্যানেজারের ভাষায়, রিয়াদের খেলার সম্ভবানা ফিফটি-ফিফটি।’

আজ সাউদাম্পটন থেকে বার্মিংহাম যাবার পথে জাগোনিউজের সঙ্গে মুঠোফোন আলাপে ম্যানেজার সুজন বলেন, ‘রিয়াদের ইনজুরি খুব যে গুরুতর তা নয়। তবে কাফ মাসলের ইনজুুরি এক সপ্তাহর মধ্যে ভাল হওয়া একটু কঠিন। ফিজিও চন্দ্রমোহন আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘তার চেয়ে বড় কথা রিয়াদ নিজে দারুণ আত্ববিশ্বাসী। সে ভারতের সাথে ম্যাচ খেলতে মুখিয়ে আছে। তার আত্মবিশ্বাস ও উদ্যম দেখে খুব ভাল লাগছে আমার। কখনো কখনো ইনজুরিকে মনের জোর ও প্রবল ইচ্ছাশক্তি দিয়ে জয় করা যায়, আমার মনে হয় কাফ মাসলের এ ইনজুরি কাটিয়ে উঠতে রিয়াদ বদ্ধপরিকর। কাজেই তার ইচ্ছশক্তি ও মনের জোরের কাছে শেষ পর্যন্ত ইনজুরি হার মানতেও পারে।’

এআরবি/এসএএস

আপনার মতামত লিখুন :