মিঠুনের মাথা খুব ভালো : কোচ সালাউদ্দীন

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:৫৪ পিএম, ১৭ ডিসেম্বর ২০২০

শুধু ‘পঞ্চ পান্ডবে’র তিনজন বলেই নয়- মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহীম, তামিম ইকবালরা বর্তমান সময়ের তিন সিনিয়র ক্রিকেটারও বটে। যাদের দু’জন তামিম ইকবাল (ওয়ানডে অধিনায়ক) আর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক) জাতীয় দলের অধিনায়ক।

এই তিন সু-প্রতিষ্ঠিত তারকা ছাড়া বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে আরও দুজন ক্যাপ্টেন্সি করেছেন, যার একজন নাজমুল হোসেন শান্ত। অন্যজন মোহাম্মদ মিঠুন। বাঁ-হাতি টপ অর্ডার নাজমুল হাসান শান্ত এর আগে তিন দলের প্রেসিডেন্টস কাপে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তার দল রানার্সআপও হয়েছে। এছাড়া মোহাম্মদ মিঠুন ‘এ’ দল আর হাই পারফরমেন্স ইউনিটেরও অধিনায়কত্ব করেছেন।

কিন্তু মোহাম্মদ মিঠুন এই মানের বড় আসরে প্রথম নেতৃত্ব দিচ্ছেন। শুধু অধিনায়কত্ব করছেন বলেই নয়, তার দল মাঠেও দারুন পারফর্ম করেছে। প্রথম ও ফিরতি পর্বে রবিন লিগে ৮ ম্যাচের ৭ টিতে জিতে সবার আগে শীর্ষস্থান দখল করে সেরা চার নিশ্চিতও করেছে মিঠুনের দল।

মনে হচ্ছিল, খুব সহজেই ফাইনালের টিকিট পাবে চট্টগ্রাম। কিন্তু কোয়ালিফায়ারে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাকিব আল হাসান আর মাশরাফি বিন মর্তুজার জেমকন খুলনার কাছে হারে কোয়ালিফায়ার-২ খেলতে হয় চট্টগ্রামকে।

অবশেষে সেই ম্যাচে বেক্সিমকো ঢাকাকে-৭ উইকেটে হারিয়ে পৌঁছে গেছে ফাইনালে। আগামীকাল ১৮ ডিসেম্বর রিয়াদের খুলনার সাথে ফাইনাল খেলবে মিঠুনের চট্টগ্রাম। এ যেন ঠিক প্রেসিডেন্টস কাপের মতই ঘটনা। ওই আসরে তামিমের দলকে যেমন ফাইনালে খেলেছিল নাজমুল হোসেন শান্তর দল আর বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টিতে তামিম-মুশফিকের দলকে টপকে ফাইনালে মিঠুনের দল।

সৌম্য সরকার, লিটন দাস, মোসাদ্দেক, মোস্তাফিজুর রহমানের মত প্রতিষ্ঠিত ও বড় ক্রিকেটার দলে থাকার পরও দল পরিচালনায় মিঠুন। কেমন অধিনায়ক মিঠুন?

মাঠের পারফরমেন্সমকে নিয়ামক ধরলে অতিবড় সমালোচকও বলতে বাধ্য হবেন ‘দারুন’। কারণ ১০ ম্যাচের ৮ টিতে জিতেছে তার দল চট্টগ্রাম। শুধু সবাইকে হারানো এবং সর্বাধিক ম্যাচ জেতার কারণেই নয়, মিঠুনের দল পরিচালনা প্রশংসা কুড়িয়েছে স্থানীয় বিশেষজ্ঞদেরও।

এমনকি গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দীনও সন্তুষ্ট। তার মূল্যায়ন, ‘আমার মনে হয় যে, মিথুনের মাথা খুবই ভালো এবং খুব ভালো সিদ্ধান্ত নিতে পারে সে।’

মিঠুনের ক্যাপ্টেন্সি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে সালাউদ্দীন বলেন, ‘কারো কারো ধারনা, মিঠুন ঘরোয়া ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব করেনি। আমার মনে হয় এটা ভুল ধারণা, যে মিথুন আগে ক্যাপ্টেন্সি করেনি। মিথুন কিন্তু ডোমেস্টিকে অনেকগুলো ম্যাচে ক্যাপ্টেন্সি করেছে। ভালো গ্রুপেও করেছে। আবাহনীর মত দলের নেতৃত্বও দিয়েছে। আমার মনে হয় যে, মিথুনের মাথা খুবই ভালো এবং খুব ভালো সিদ্ধান্ত নিতে পারে।’

সালাউদ্দীন যোগ করেন, ‘আমার প্লেয়াররাও বুঝতে পেরেছে যে মিথুনের মাথা খুবই ভালো। সেদিক দিয়ে লিটনেরও প্রশংসা অনেক করতে হবে। তারা দু’জন মাঠে ছিল বলে আমাদের ছেলেদের জন্য অনেক সুবিধা হয়েছে। অনেক ডিসিশন নেওয়ার সুবিধা হয়েছে। সবদিক দিয়ে বলবো ক্যাপ্টেন্সি করার মত ম্যাটেরিয়ালস আছে মিঠুনের। সে যদি ভালো ক্রিকেট খেলে, তাহলে তার ক্যাপ্টেন হওয়ার মত যোগ্যতা আছে।’

এআরবি/আইএইচএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]