পার্থক্য বুঝিয়ে দিলো রাশিয়ান মেয়েরা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:০২ পিএম, ২২ মার্চ ২০২৩

আন্তর্জাতিক ফুটবলে বাংলাদেশের সঙ্গে রাশিয়ার পার্থক্য কী, তা বুঝিয়ে দিয়েছে দেশটির অনূর্ধ্ব-১৭ দলের মেয়েরা। এই প্রথম ইউরোপের কোনো দেশ হিসেবে রাশিয়া দক্ষিণ এশিয়ার টুর্নামেন্ট সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিতে এসে প্রথম ম্যাচেই বুঝিয়ে দিয়েছে কোথায় তারা এবং কোথায় দাঁড়িয়ে বাংলাদেশের নারী ফুটবল।

বুধবার কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে নিজেদের প্রথম ম্যাচে রাশিয়া স্বাগতিক বাংলাদেশকে হারিয়েছে ৩-০ গোলে।

স্বাগতিক বাংলাদেশের এটি ছিল দ্বিতীয় ম্যাচ। প্রথম ম্যাচে ৮-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। রাশিয়ার বিপক্ষে জিততে না পারলেও ভালো একটা লড়াইয়ের কথা শুনিয়েছিলেন বাংলাদেশ দলের কোচ-অধিনায়ক। তবে দুই দেশের ফুটবলের পার্থক্যের বাস্তবতা বুঝিয়ে দিয়েই মাঠ ছেড়েছেন রাশিয়ান মেয়েরা।

কেবল দৌহিকভাবেই নয়, টেকনিক, ট্যাকটিস ও গতিতেও বাংলাদেশের চেয়ে অনেক এগিয়ে ছিলেন রাশিয়ান মেয়েরা। এই এগিয়ে থাকার সুবিধা নিয়ে তারা শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলেন এবং ৬ মিনিটের মধ্যেই গোল করে লিড নিয়ে নেন। ভাসিলিসা আভাদনকোর লম্বা লব থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন রুশ ফরোয়ার্ড অধিনায়ক এলেনা।

রাশিয়া ব্যবধান দ্বিগুণ করে ৪৫ মিনিটে। দ্বিতীয় গোলটি ছিল রাশিয়ান মেয়েদের একটি পরিকল্পিত আক্রমণের ফল। বাংলাদেশ গোলরক্ষক সঙ্গীতার গোলকিকের বল পেয়ে হেড করেছিলেন ভাসিলিসা। সেই বল পেয়ে থ্রু পাস দেন আনাস্তাসিয়া। বাংলাদেশ অধিনায়ক রুমাকে কাটিয়ে আড়াআড়ি পাস দেন আনাস্তাসিয়া। কোনো ভুল করেননি রুশ অধিনায়ক এলেনা। নিজের দ্বিতীয় গোল করে দলের ব্যবধান দ্বিগুণ করেন।

২-০ ব্যবধানের লিড নিয়ে দ্বিতীয়ার্ধ শুরু। দ্বিতীয়ার্ধে এক গোল করে ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় রাশিয়া। দ্বিতীয় গোলটি করেছেন আনাস্তাসিয়া। বাংলাদেশ বিচ্ছিন্নভাবে আক্রমণ করে একাধিকবার গোলের সুযোগ তৈরি করলেও কাজের কাজটি করতে পারেনি।

একবার প্রীতির একটি কোনাকুনি শট দুর্দান্তভাবে রুখে দিয়েছেন রাশান গোলরক্ষক। ঝড়ের গতিতে শুরুতে লিড নিয়ে রাশিয়া আভাস দিয়েছিল বাংলাদেশকে হয়তো গোলবন্যায় ভাসাবে তারা। তবে বাংলাদেশের মেয়ের কিছু বোঝার আগে গোল খেয়ে বসলেও পরে রক্ষণদুর্গ আগলিয়ে ৩-০ গোলেই রাশিয়াকে আটকে রাখতে সমর্থ হয়েছে।

বাংলাদেশ একাদশ
সঙ্গীতা রানী দাস, রুমা আক্তার, কানম আক্তার, জয়নব বিবি রিতা (সাগরিকা), অর্পিতা বিশ্বাস, রিতু আক্তার, নুসরাত জাহান মিতু, থুইনুই মারমা, তৃষ্ণা রানী, কানন রানী বাহার, সুরভী আকন্দ প্রীতি।

আরআই/এমএমআর/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।