বগুড়ায় সওজের এসই’র বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ০৫:৫৪ পিএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৬:০৯ পিএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (এসই, বগুড়া সার্কেল) সাদেকুল ইসলামের বিরুদ্ধে এবার দুর্নীতি, লুটপাট ও ঘুষ দাবি করার অভিযোগ এনে আদালতে মামলা হয়েছে।

বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেছেন পৌরসভার সাবেক কাউন্সিলর জাহেদুর রহমান। আদালতের মামলায় সাদেকুলের সঙ্গে আরও বগুড়া সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামানকেও আসামি করা হয়েছে।

আদালতের মামলায় উল্লেখ করা হয়, পাবলিক প্রকিউরমেন্ট রেগুলেশন (পিপিআর) ২০০৮ এ উল্লেখ রয়েছে ৩ কোটি টাকা পর্যন্ত দরপত্রে শর্তমুক্ত দরপত্র আহ্বানের কথা। কিন্তু বগুড়া সড়ক ও জনপথ বিভাগ দুর্নীতির স্বার্থে ইলেকট্রনিক পদ্ধতি ন্যাশনাল ই-গর্ভমেন্ট প্রকিউরমেন্ট (ই-জিপি) দরপত্র আহ্বান করছে।

মামলায় উল্লেখ করা হয় শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতর, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর, বরেন্দ্র বহুমুখি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, ত্রাণ ও দুর্যোগ অধিদফতর ৩ কোটি টাকা পর্যন্ত শর্তমুক্ত দরপত্র আহ্বান করছে। সব ঠিকাদার ৫% নিম্নদর উদ্বৃতির দ্বারা লটারির মাধ্যমে ঠিকাদার নির্বাচন হচ্ছে।

মামলার বাদী বগুড়া শহরের বৃন্দাবনপাড়ার বাসিন্দা জাহেদুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, গত ১৬ জানুয়ারি সওজের বগুড়া সার্কেল অফিসে সেখানে উপস্থিত তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (এসই) সাদেকুল ও নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামানকে ২২ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দরপত্রে একটি কাজ তার নিজের প্রতিষ্ঠানের নামে সহজ শর্তে পাইয়ে দেয়ার অনুরোধ জানান। তখন এসই সাদেকুল তার কাছে যতো টাকার কাজ তার ২৫ ভাগ নগদ টাকা দাবি করেন। তিনি এই ঘুষ দাবির প্রতিবাদ করলে এসই সাদেকুল তাকে গালিগালাজ করেন এবং সরকারি কাজে বাধা দেয়ার মিথ্যা অভিযোগে নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামানকে থানায় অভিযোগ করার পরামর্শ দেন।

মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়, এসই সাদেকুল বগুড়া সার্কেলে যোগদানের পর থেকেই সরকারি কাজে এক অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছেন। অনিয়ম ছাড়া এখন সওজের কোনো কাজ হয়না। তার এসব কাজে নির্বাহী প্রকৌশলী সহযোগিতা করেন। এসই সাদেকুলের বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে শতকোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগ দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকের কাছে করা হয়েছে।

জানতে চাইলে সওজ বগুড়া সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সাদেকুল ইসলাম বলেন, আদালতে মামলা দায়ের করার কথা তিনি শুনেছেন। যেসব অভিযোগ করা হয়েছে তা সঠিক নয়। নিয়ম মেনেই সওজের দরপত্র আহ্বান ও কার্যাদেশ দেয়া হচ্ছে। কেউ তার বিরুদ্ধে শত্রুতা করে এসব অভিযোগ করেছে।

আর সওজ’এর নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামান বলেন, তিনি কোনো অনিয়মের সঙ্গে জড়িত নয়। মামলাটি তারা যথাযথ নিয়মেই মোকাবেলা করবেন।

লিমন বাসার/এমএএস/পিআর