দুই বন্ধুর জালে ফেঁসে গেল স্কুলছাত্রী, ভিডিও ইন্টারনেটে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি নরসিংদী
প্রকাশিত: ০৭:৩৪ পিএম, ০৩ এপ্রিল ২০১৮ | আপডেট: ০৭:৩৯ পিএম, ০৩ এপ্রিল ২০১৮
প্রতীকী ছবি

নরসিংদীর পলাশে দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে তাদের আদালতে সোপর্দ করলে আদালত এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গ্রেফতারকৃতরা হলো, সুলতানপুর গ্রামের আসাদ মিয়ার ছেলে রনি মিয়া (২০) ও একই এলাকার তার বন্ধু ফজর আলী ভূঁইয়ার ছেলে মো. ফয়সাল মিয়া (২০)।

পুলিশ জানায়, ওই স্কুলছাত্রীর সঙ্গে গ্রেফতারকৃত রনির প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। এরই জের ধরে গত ১ এপ্রিল সকালে স্কুলের যাওয়ার পর কথিত প্রেমিক স্কুলছাত্রীকে ফয়সালদের বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে রনি তাকে ধর্ষণ করে। আর গোপনে সেই দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করে ফয়সাল। পরে অশ্লীল সেই দৃশ্য ইন্টারনেটসহ এলাকার উঠতি বয়সের ছেলেদের মোবাইলে ছড়িয়ে দেয় তারা। এতে এলাকায় সমালোচনা শুরু হলে বিষয়টি ওই স্কুলছাত্রীর পরিবারের নজরে আসে।

এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে পলাশ থানায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলায় দায়েরের পর পুলিশ তাদের প্রেফতার করে।

মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ বখাটেদের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুরাদ জাহান চৌধুরীর আদালতে সোপর্দ করেন। ওই সময় পুলিশ অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। পরে আদালতের বিজ্ঞ বিচারক এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

পুলিশের অপর একটি সূত্র জানায়, স্কুলছাত্রীর সঙ্গে প্রেফতারকৃত রনির প্রেমের সম্পর্ক ছিল। তারা হরহামেসাই স্কুল ফাঁকি দিয়ে ঘুরা ফেরা করতো। স্কুলছাত্রীটি পলাশের সুলতানপুর তৌহীদ মেমোরিয়াল হাই স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী।

পলাশ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইদুর রহমান বলেন, মামলা দায়েরের সঙ্গে সঙ্গে আসামিদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

সঞ্জিত সাহা/এমএএস/এমএস