ঘর থেকে বের করে মুক্তিযোদ্ধার ছেলেকে হত্যাচেষ্টা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার
প্রকাশিত: ০২:৪৯ এএম, ২৬ এপ্রিল ২০১৯

কক্সবাজারের পেকুয়ায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে বদিউল আলম নামের এক মুক্তিযোদ্ধার ছেলেকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার ভোররাতে উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের বামুলাপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

বদিউল আলমকে উদ্ধার করতে গিয়ে তার দুই ভাতিজি জোছনা আক্তার (২৫) ও আমিনা বেগম (২৯) আহত হয়েছেন। পরে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় পরিবারের সদস্যরা আহতাবস্থায় তাদের উদ্ধার করে।

আহতদের পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আহত বদিউল আলম একই এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত গোলাম নবীর ছেলে এবং পেশায় লবণ ব্যবসায়ী, জোসনা আক্তার ও আমিনা বেগম শফিউল আলমের মেয়ে।

আহত বদিউল আলমের ভাই শফিউল আলম বলেন, আমাদের পৈত্রিক সূত্রে মালিকানাধীন ৩৪ শতক জমি দীর্ঘদিন ধরে জবরদখল করে রাখে একই এলাকার মৃত সেকান্দর আলীর ছেলে সাবেক ইউপি সদস্য মো. জাবের। জমিটি ফেরত চাইলে তিনি বিভিন্নভাবে আমাদের হুমকি দিয়ে আসছেন। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার দিনগত গভীর রাতে পরিকল্পিতভাবে আমার ভাই বদিউল আলমের বাড়ির টিনের চালায় ঢিল ছুড়ে তাকে ঘর থেকে বের করে হত্যাচেষ্টা চালানো হয়।

তিনি বলেন, কে ঢিল ছুড়েছে তা দেখতে ঘর থেকে বের হওয়া মাত্র ধারাল অস্ত্র দিয়ে তাকে উপর্যুপরি কোপানো হয়। আমার ভাই বদিউল আলমকে হামলাকারীরা টেনেহিঁচড়ে বামুলাপাড়া রাস্তায় নিয়ে বেধড়ক মারধর করে। তার চিৎকার শুনে পাশের ঘর থেকে আমার দুই মেয়ে বের হলে তাদেরও কুপিয়ে এবং পিটিয়ে জখম করা হয়।

তিনি আরও বলেন, একই এলাকার মৃত বদি আহমদের ছেলে চিহ্নিত দুর্বৃত্ত ও বহু মামলার আসামি আনছার উদ্দিন, মৃত বজল আহমদের ছেলে কাছিম আলী, মৃত আবু তাহেরের ছেলে মো. আক্তার ও মৃত সেকান্দর আলীর ছেলে সাবেক ইউপি সদস্য মো. জাবেরের নেতৃত্বে ৮-৯ জন দুর্বৃত্ত দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে এ হামলা চালায়। তবে এ ঘটনার ২০ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলে জড়িতদের আটক করতে পারেনি পুলিশ।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে সাবেক ইউপি সদস্য মো. জাবেরের মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। ফোন বন্ধ পাওয়ায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকির হোসেন ভুঁইয়া বলেন, ভুক্তভোগীর পক্ষে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সায়ীদ আলমগীর/বিএ

আপনার মতামত লিখুন :