থানায় ঢুকে অশোভন আচরণ করায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আটক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৯:১২ পিএম, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা মডেল থানায় গ্রেফতার হওয়া আসামিকে দেখতে গিয়ে পুলিশের সঙ্গে অশোভন আচরণে জড়িয়ে পড়েন উপজেলার নারী ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির। পরে তাকে আটক করা হয়। আটকের ৫ ঘণ্টা পর মুচলেকায় মুক্তি পান ফাতেমা মনির।

ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের নেতাদের সুপারিশে তাদের জিম্মায় ভাইস চেয়ারম্যানকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনিরকে ছেড়ে দেয়া হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় একটি মারামারি মামলায় নারীসহ দুই আসামিকে গ্রেফতারের পর সেই আসামির পক্ষ নিয়ে থানায় যান নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের নেত্রী ফাতেমা মনির। তিনি থানার ভেতর প্রবেশ করে পুলিশের কাছে জানতে চান কেন তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। এতে ফাতেমা মনির পুলিশের সঙ্গে অশোভন আচরণ করার ঘটনায় পুলিশ ফাতেমা মনিরকে আটক করে।

এদিকে ফাতেমা মনিরকে আটক করেছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে ফতুল্লা থানায় ছুটে যান ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফউল্লাহ বাদল, সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী ও মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম এবং এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান। তারা ওসি আসলাম হোসেনের সঙ্গে বসে ফাতেমা মনিরের আটকের ঘটনার বিষয় শোনেন এবং পুলিশের সঙ্গে ফাতেমা মনিরের অশোভন আচরণের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন। পরে ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়ায় ওসি সবার সঙ্গে পরামর্শ করে তাকে মুচলেকা নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাদের জিম্মায় ছেড়ে দেন।

ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন জানান, ফাতেমা মনির একজন জনপ্রতিনিধি। উনি যেকোনো বিষয়ে থানায় আসতেই পারেন। ওনার পরিচিত ব্যক্তিদের পুলিশ গ্রেফতার করায় উনি থানায় এসে ঘটনার বিস্তারিত না জেনে পুলিশের সঙ্গে অশোভন আচরণ করেন। যে কারণে ফাতেমা মনিরকে আটক করা হয়েছিল। সামান্য ভুল বোঝাবুঝি হওয়ায় এমন ঘটনা ঘটেছে। তাকে মুচলেকায় আওয়ামী লীগ নেতাদের জিম্মায় ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

শাহাদাত হোসেন/এমএএস/পিআর