ভূমিদস্যুদের হামলায় মারাই গেলেন বন কর্মকর্তা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার
প্রকাশিত: ০৫:১৫ পিএম, ০৬ আগস্ট ২০২০

সংরক্ষিত বন রক্ষা করতে গিয়ে সশস্ত্র ভূমিদস্যুদের হামলায় আহত কক্সবাজার উপকূলীয় বন বিভাগের মহেশখালী রেঞ্জের সহকারী রেঞ্জ কর্মকর্তা ইউসুফ উদ্দীন (৩০) মারা গেছেন। ঘটনার সাতদিনের মাথায় বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) ভোর সাড়ে ৬টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের (সদর) রেঞ্জ কর্মকর্তা ও বিশেষ টহল দলের অফিসার ইনচার্জ ইমদাদুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত ৩০ জুলাই মহেশখালীর কেরুনতলি লম্বাইয়াকাটা করইবুনিয়ায় সংরক্ষিত বনভূমিতে গড়ে তোলা অবৈধ পানের বরজ উচ্ছেদ অভিযানে গিয়ে দখলবাজদের হামলায় ইউসুফসহ বন বিটের আরও কয়েকজন সদস্য আহত হন। অস্ত্রোপচারের পর সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় ইউসুফকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছিল।

নিহত ইউসুফ উদ্দীন কুতুবদিয়া উপজেলার বড়ঘোপ ইউনিয়নের মগডেইল এলাকার বাসিন্দা। তিনি কক্সবাজার উপকূলীয় বন বিভাগের মহেশখালী রেঞ্জের সহকারী রেঞ্জ কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন।

উপকূলীয় বন বিভাগ সূত্র জানায়, সবাই যখন কোরবানির ঈদের আয়োজন নিয়ে ব্যস্ত তখন উপকূলীয় বন বিভাগের মহেশখালী রেঞ্জের কেরুনতলী বিটের লাম্বাইয়াকাটা করইবুনিয়া এলাকায় সংরক্ষিত বনভূমিতে স্থানীয় ভূমিদস্যু চক্র অবৈধভাবে পানের বরজ তৈরি শুরু করে। খবর পেয়ে ৩০ জুলাই অবৈধ পানের বরজ উচ্ছেদ করতে যান সহকারী রেঞ্জ কর্মকর্তা ইউসুফ উদ্দীন, কেরুনতলী বিট কর্মকর্তা আহসানুল কবির (৪৫) এবং বন বিভাগের নৌকা চালক জিয়া রহমানসহ আরও কয়েকজন বন কর্মী।

তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছা মাত্র সঙ্গবদ্ধ ভূমি দখলবাজ চক্র অতর্কিতভাবে তাদের ওপর হামলা চালায়। দখলবাজদের এলোপাতাড়ি হামলায় আহত হন সহকারী রেঞ্জ কর্মকর্তা ইউসুফ উদ্দিন, বিট কর্মকর্তা আহসানুল কবির এবং বন বিভাগের নৌকা চালক জিয়া। আহতদের মধ্যে ইউছুফ উদ্দিনের অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে ইউছুফের মাথায় অস্ত্রোপচারের পর অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হওয়ায় তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৬টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

উপকূলীয় বন বিভাগের মহেশখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা সুলতানুল আলম চৌধুরী বলেন, মহেশখালীতে সংরক্ষিত বন অবৈধ দখলের খবর পেয়ে অভিযানে গেলেই ভূমিদস্যুদের হামলার শিকার হতে হচ্ছে বন কর্মীদের। দখলবাজদের হামলা আমাদের হতাশ করে দিয়েছে।

মহেশখালী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিদারুল ফেরদৌস বলেন, এ ঘটনায় গত শনিবার (১ আগস্ট) রাতে কেরুনতলী বিট কর্মকর্তা আহসানুল কবির বাদী হয়ে পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ২০-২৫ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন। মামলার পর রোববার (২ আগস্ট) বিকেলে অভিযুক্ত দুই নম্বর আসামি মহেশখালীর হোয়ানক লম্বাইয়াকাটা এলাকার আক্কেল আলীর ছেলে কলিমউল্লাহ ওরফে কালাইয়াকে (৪৮) গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদেরও ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সায়ীদ আলমগীর/আরএআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]