অভয়নগরে মেম্বার হত্যার ২৪ ঘণ্টায়ও হয়নি মামলা, নেই আটক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি যশোর
প্রকাশিত: ০৮:১৪ পিএম, ০৮ মার্চ ২০২১

যশোরের অভয়নগরে ইউপি সদস্য নূর আলী ওরফে নূর আলী মেম্বার (৫০) হত্যার ঘটনার ২৪ ঘণ্টাপরও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। সোমবার (৮ মার্চ) সন্ধ্যায় পর্যন্ত এ ঘটনায় থানায় কোনো মামলা হয়নি।

এর আগে রোববার (৭ মার্চ) রাত ৮টার দিকে যশোরের অভয়নগরের শুভরাড়া গ্রামের বাবুরহাট নামকস্থানে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন ইউপি সদস্য নূর আলী। এ সময় তার ছেলে ইব্রাহিম (১৬) গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছে।

অভয়নগর থানার ওসি (তদন্ত) মিলন কুমার মণ্ডল বলেন, ‘৭ মার্চের অনুষ্ঠান শেষে সন্ধ্যায় মোটরসাইকেলযোগে নিজ বাড়ি ফিরছিলেন নূর আলী ও তার ছেলে। শুভরাড়া ইউনিয়নের বাববুরহাট নামকস্থানে পৌঁছালে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা খুব কাছ থেকে গুলি করে। নূর আলীর মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়।

এলাকাবাসী জানায়, দীর্ঘদিন ধরে অভয়নগরের শুভরাড়া ইউনিয়নে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে চরমপন্থি সংগঠন নছর বাহিনী ও তোরণ বাহিনীর মধ্যে বিবাদ চলছিল। নছর বাহিনীর কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত ছিলেন নিহত ইউপি সদস্য নূর আলী।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই ওয়ার্ডের এক আওয়ামী লীগ নেতা জানান, তিনদিন আগে বাবুরহাট বাজারে লাল্টুর কাপড়ের দোকানে তোরণ বাহিনীর এক নেতার সঙ্গে বাগবিতণ্ডা হয় নূর আলীর। এসময় নূর আলী প্রকাশ্যে ওই নেতার হাত-পা ভাঙাসহ হত্যার হুমকি দেন। এরই জের ধরে হত্যাকাণ্ড হতে পারে বলে তিনি দাবি করেন।

নিহতের পরিবারের দাবি, পরিকল্পিতভাবে নূর আলীকে হত্যা করা হয়েছে। গুলিবিদ্ধ ইব্রাহিমের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুভরাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক বিশ্বাস বলেন, ‘নূর আলী ভালো মানুষ ছিলেন। দলের জন্য নিবেদিত ছিলেন। নির্মম এ হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।’

অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, ‘রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। কাছ থেকে নিহতের মাথা ও বুকে একটি করে গুলি করা হয়েছে। আলামত উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের ছেলের পায়ে ও শরীরে গুলি লেগেছে।’

তিনি আরও জানান, ‘হত্যা রহস্য বের করতে থানা পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বিভিন্ন বাহিনী পৃথকভাবে কাজ করছে। পরিবারের পক্ষ থেকে এখনও মামলা করা হয়নি বলেও জানান।

মিলন রহমান/আরএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]