অটোরিকশার চাকা ফুটো করায় কমিউনিটি পুলিশ সদস্যকে তুলে নিয়ে মারধর

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৭:০৯ পিএম, ২৮ জুন ২০২২

নারায়ণগঞ্জে নাছির নামের কমিউনিটি পুলিশের এক সদস্যকে তুলে নিয়ে মারধর করার অভিযোগে তিন যুবককে আট্ক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) দুপুরে চাষাড়া থেকে মাসদাইর এলাকায় তুলে নিয়ে ওই পুলিশ সদস্যকে মারধর করা হয়। পরে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে শহরের জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় আটকরা হলেন লালমনিরহাট সদর থানার ফাতান্ডারি এলাকার শহিদুলের ছেলে ও ফতুল্লা মডেল থানার জামতলার খোকনের ভাড়াটিয়া মিঠু (২০), মোফাজ্জলের ছেলে ও ফতুল্লা থানার জামতলার রব মিয়ার ভাড়াটিয়া জনি (১৮) ও একই থানা এলাকার আবুল কালামের ছেলে জহিরুল (২৩)।

স্থানীয়রা জানান, চাষাড়ার প্রধান সড়কে পুলিশের হয়ে কাজ করছিলেন কমিউনিটি পুলিশের সদস্য নাছির ট্রাফিক। শহরের ভেতরে যাতে অটোরিকশা বা ইজিবাইক প্রবেশ করতে না পারে এবং যানজট নিরসনে তিনি কাজ করছিলেন। দুপুরে একটি অটোরিকশায় করে আসা ৪-৫ জন যুবক তাকে জোর করে অটোরিকশায় তুলে নিয়ে মাসদাইর গুদারাঘাট সংলগ্ন দেওয়াল ঘেরা ভূইয়ার বাড়ির ভেতরে নিয়ে যান।

সেখানে নিয়ে গিয়ে নাছিরকে কাঠের টুকরো ও ইট দিয়ে আঘাত করে আহত করা হয়। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নাছিরকে উদ্ধার ও তিনজনকে আটক করে।

এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যান সবুজ ও রমজান নামের আরও দুই যুবক। আটক যুবকরা জানান, তারা সবাই অটোরিকশা চালক। তারা জামতলার নজরুলের গ্যারেজের অটোরিকশা ভাড়া নিয়ে চালিয়ে আসছিলেন। কমিউনিটি পুলিশের সদস্য নাছির মঙ্গলবার সকালে চাষাড়া এলাকায় তাদের চারটি রিকশার চাকা পাংচার করে দিয়েছিলেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে তারা তাকে মারধর করেছেন।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নজরুল ইসলাম বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় রক্তাক্ত অবস্থায় নাছিরকে উদ্ধার করে এবং তিনজনকে আটক করে। একই সঙ্গে, একটি অটোরিকশাও আটক করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ জেলা ট্রাফিক পুলিশের (অ্যাডমিন) টিআই করিম বলেন, যানজট নিরসন এবং অটোরিকশা-ইজিবাইক যাতে শহরে প্রবেশ করতে না পারে সেসব বিষয়ে কমিউনিটি পুলিশের সদস্য নাছির আমাদের হয়ে কাজ করছিলেন। দুপুরে নাছির চাষাড়া রেলস্টেশন সংলগ্ন একটি রেস্তোরাঁয় নাস্তা করছিলেন। এ সময় ৪-৫ জন যুবক তাকে টেনেহিঁচড়ে রেস্তোরাঁ থেকে বের করে মাসদাইর এলাকায় নিয়ে যান। সেখানে নিয়ে তাকে প্রচণ্ড মারধর করা হয়।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় তিনজকে আটক করা হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মোবাশ্বির শ্রাবণ/এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]