মেয়ের সংসার টেকাতে ধানুশের দেখা চান রজনীকান্ত

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদন ডেস্ক বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৪৫ এএম, ২১ জানুয়ারি ২০২২
ধানুশ ও ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে রজনীকান্ত

দক্ষিণী সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা ধানুশ ও তার স্ত্রী ঐশ্বরিয়া বিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়েছেন। এই সপ্তাহের শুরুতে (১৭ জানুয়ারি) নিজ নিজ সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে এই কথা জানান তারা। এই দম্পতি ১৮ বছরের সংসার জীবনের ইতি টেনেছেন।

ধানুশের স্ত্রী ঐশ্বরিয়া তামিল সুপারস্টার রজনীকান্তের কন্যা। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর, রজনীকান্তে নাকি তার জামাইয়ের সঙ্গে দেখা করে কথা বলতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ধানুশ রাজি হননি। ধানুশ শ্বশুরের সঙ্গে সাক্ষাৎ এড়িয়ে গিয়েছেন বার বার। তার কারণ, তিনি রজনীকান্তকে অপমান করতে চান না।

সোমবার রাতে ধানুশ এবং ঐশ্বরিয়া লিখেছিলেন, ১৮ বছরের একসঙ্গে থাকা। বন্ধু, দম্পতি এবং অভিভাবক হিসেবে। একে অপরের শুভাকাঙ্ক্ষী হিসেবে। এই যাত্রা কেবলই একে অপরের সঙ্গ দেওয়ার, বোঝার, বেড়ে ওঠার। একে অপরের জন্য নিজেদের মধ্যে ছোট ছোট বদল ঘটানো এবং তারই সঙ্গে মিলেমিশে যাওয়ার দিন ছিল। আজ এই মুহূর্তে আমরা দুজনে এমন জায়গায় দাঁড়িয়ে আছি, যেখানে আমাদের পথ আলাদা হয়ে গিয়েছে। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, দম্পতি হিসেবে আলাদা পথে হাঁটবো। স্বতন্ত্রভাবে নিজেদের চেনার জন্য সময় নেবো।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর, ধানুশ এবং ঐশ্বরিয়া আইনি বিচ্ছেদের পথে হাঁটবেন না। তারা আইনের চোখে দম্পতিই থাকতে চান। এক ছাদের তলায় না থেকেও নিজেদের সন্তান যাত্রা রাজা (১৬) এবং লিঙ্গা রাজার (১২) অভিভাবকত্ব করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এরই মধ্যে আচমকা ধানুশের বাবা তামিল পরিচালক কস্তুরী রাজা জানিয়েছেন, ধানুশ এবং ঐশ্বরিয়ার নাকি বিচ্ছেদ হচ্ছে না। দুই পরিবারের মধ্যে বিবাদ বেঁধেছে কেবল।

কেএসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]