বাবলুর পরিচালনায় সজল-নাবিলার ‘এক্সিডেন্ট’

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৪৫ পিএম, ৩০ জুন ২০২২

নির্মিত হয়েছে নতুন টেলিছবি ‘এক্সিডেন্ট’। সাজাদ হাসান বাবলুর পরিচলানায় এই নাটকে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন সজল ও নাবিলা ইসলাম। ইউনিফ্রেম প্রযোজিত টেলিফিল্মটি আগামী ২ জুলাই শনিবার ৮টা ৩০মিনিটে মাছরাঙা টিভিতে প্রচার হবে।

পরিচালক জানান, সজল-নাবিলা ছাড়াও এ টেলিছবিতে দেখা যাবে অলিভিয়া মাইশাসহ আরও জনপ্রিয় মুখ।

এর গল্প নিয়ে পরিচালক বাবলু বলেন, ‘সাদাফও লামিয়া প্রেম যুগল। ওদের বিয়ে ঠিক হয়ে আছে। হঠাৎ একদিন ওরা লংড্রাইভে যায়। লামিয়ার ইচ্ছে সে ড্রাইভ করবে কিন্তু সাদাফ রাজি হয় না। অবশেষে লামিয়ার অনেক অনুরোধে সে রাজি হয়। রাস্তায় লামিয়ার গাড়ির সামনে হঠাৎ এসে পড়ে রাত্রি।

লামিয়া চায় রাত্রিকে রাস্তায় ফেলে পালিয়ে যেতে। কিন্তু সাদাফ তাতে রাজি হয় না। রাত্রিকে হাসপাতালে নিয়ে য়ায এবং চিকিৎসা করায়। কিন্তু রাত্রি তখনো ওদের কোনো কথার উওর দেয় না। অগত্যা সাদাফ লামিয়াকে বলে রাত্রিকে তার বাসায় নিয়ে যাবার জন্য। কিন্তু লামিয়া রাজি হয় না।

রাগ করে চলে যায়। সাদাফ দায়িত্ববোধ থেকে রাত্রিকে নিজ বাসায় নিয়ে যায়। তখন সাদাফ বুঝতে পারে রাত্রি একটা স্পেসাল চাইল্ড। অদর্শবান হিসেবে সাদাফ রাত্রিকে দেখে এবং তাকে নিয়ে তার ঠিকানা খোঁজার চেষ্টা করে।

এদিকে লামিয়া সাদাফ ও রাত্রিকে নিয়ে সনেদহ করে। লামিয়া তার মা ও বাবাকে সব জানায়। তারা সাদাফের বাসায় এসে রাত্রিকে শাসিয়ে যায়। ধীরে ধীরে সাদাফের আদর যত্ন পেয়ে রাত্রি সাদাফের প্রতি দুর্বল হয়ে পড়ে।

সাদাফ লামিয়াকে বোঝায় একটা প্রতিবন্ধী মানুষের প্রতি দায়িত্ব ও কর্তব্য থেকে সে রাত্রিকে দেখভাল করেছে। আমাদের সমাজের সবার দায়িত্ব এই ধরনের মানুষের প্রতি সদয় হওয়া। লামিয়া তার ভূল বুঝতে পেরে সাদাফের কাছে মাফ চায়। তখন ওদের ভুল বোঝাবুঝির অবসান হয়।

এলএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]