লেবাননে সৈন্য মোতায়েনের সময় বাড়াল তুরস্ক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৩৮ পিএম, ২৩ অক্টোবর ২০১৯

জাতিসংঘের অন্তর্বর্তীকালীন বাহিনীর অংশ হিসেবে লেবাননে আরো এক বছরের জন্য সৈন্য মোতায়েন রাখার ঘোষণা দিয়েছে তুরস্ক। দেশটির সরকারি সংবাদ সংস্থা আনাদোলু অ্যাজেন্সি এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, জাতিসংঘের অন্তর্বর্তীকালীন বাহিনীর সহযোগী হিসেবে আরও এক বছর লেবাননে তুরস্কের সৈন্য মোতায়েন থাকবে। দেশটির সংসদে এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব উত্থাপন করেছিলেন ক্ষমতাসীন জাস্টিস অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট (একে) পার্টির এক সদস্য।

সংসদের প্রধান বিরোধী দল রিপাবলিকান পিপলস পার্টি (সিএইচপি), ন্যাশনালিস্ট ম্যুভমেন্ট পার্টি (এমএইচপি) ও গুড (আইওয়াইআই) পার্টির বিরোধিতা সত্ত্বেও প্রস্তাবটি পাস হয়।

লেবাননে জাতিসংঘের অন্তর্বর্তীকালীন বাহিনীর সদস্য হিসেবে তুরস্কের সেনা মোতায়েন রয়েছে। মোতায়েনের সময় বৃদ্ধি করায় এখন জাতিসংঘের ইউএনআইএফআইএল মিশনে অংশ নেয়া এই তুর্কি সেনারা দেশটিতে আগামী ২০২০ সালের ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত সেখানে থাকবে।

লেবাননে সৈন্য মোতায়েনের জন্য ২০০৬ সালে তুরস্কের পার্লামেন্টে প্রথম একটি প্রস্তাবনা পাস হয়। এর পর গত ১৩ বছরে দেশটির সংসদে কমপক্ষে ১২ বার সেনা মোতায়েনের এই সময়সীমা বৃদ্ধি করা হয়।

লেবানন থেকে ইসরায়েলি সৈন্যরা ফিরে যাওয়ার পর ১৯৭৮ সালে প্রথমবারের মতো জাতিসংঘের ইউএনআইএফআইএল মিশনের কার্যক্রম শুরু হয়। দেশটির নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা ফেরার লক্ষ্যে ও সরকারকে সহযোগিতা করতে জাতিসংঘ ওই বছর প্রথমবারের মতো শান্তিরক্ষী বাহিনী মোতায়েন করে।

লেবাননে জাতিসংঘের ইউএনআইএফআইএল মিশনে বিশ্বের ৪০টি দেশের অন্তত ১০ হাজার ৬০০ সেনা মোতায়েন রয়েছে।

সূত্র : আনাদোলু অ্যাজেন্সি।

এসআইএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]