বাংলাদেশি রাজুবের লেখা হার্ভার্ডের পাঠ্যসূচিতে

সাহিত্য ডেস্ক সাহিত্য ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:০৯ পিএম, ১২ নভেম্বর ২০১৯

বাংলাদেশি-আমেরিকান সাংবাদিক এবং নিউইয়র্ক সিটি পুলিশের কর্মকর্তা ড. রাজুব ভৌমিকের লেখা হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের স্নাতকোত্তর পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। বইটির নাম ‘জার্নালিস্ট অব টুডে : প্রোফাইলস ইন প্যাশন অ্যান্ড ডাইভার্সিটি’। বইটি সম্পাদনা করেছেন হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও সাংবাদিক জুন ক্যারোলাইন আর্লিক।

সম্পাদক আর্লিক জানান, বইটি হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগে নিয়মিত পাঠ্য হিসেবে ব্যবহৃত হবে। সংবাদপত্রের ফিচার ও প্রোফাইল নিয়ে লেখা বইটি ‘নিউজ রাইটিং এবং প্রোসেমিনার ইন জার্নালিজম স্টাডিজ’ মাস্টার্স কোর্সে ব্যবহৃত হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের মেধাবী কিছু ছাত্রছাত্রীর লেখা রয়েছে বইটিতে।

লেখক রাজুব ভৌমিক বইটি সম্পর্কে বলেন, ‘প্রজেক্টটি নিয়ে আমরা সবাই বহুদিন নিরলসভাবে কাজ করেছি। বইটি মূলত ফিচার নিয়ে লেখা। আমার অংশে কিভাবে ওয়াশিংটন পোস্টের ফিচারের সূত্র মেনে ফিচার লিখতে হয়, তার জন্য আমি নিউইয়র্ক ডেইলি নিউজের সম্পাদকের ইন্টারভিউ নিয়ে মডেল ফিচার লিখেছি। আশা করি বইটি হার্ভার্ডের সাংবাদিকতা বিভাগের ভবিষ্যৎ ছাত্রছাত্রীদের অনেক উপকারে আসবে। আবার যারা ফিচার লিখতে আগ্রহী; তারাও বইটি কিনতে পারেন।’

প্রথম আলো উত্তর আমেরিকা সংস্করণের মধ্য দিয়ে ড. রাজুব ভৌমিকের সাংবাদিকতা শুরু। বর্তমানে তিনি জাগোনিউজ২৪.কম এবং বাংলাদেশ প্রতিদিনের নিয়মিত লেখক। তিনি ‘আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব’র একজন সদস্য। তার জন্ম নোয়াখালী জেলার কবিরহাট থানার শ্রীনদ্দি গ্রামে—তার জন্মসাল ১৯৮৮।

ওটার হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তার শিক্ষাজীবন শুরু হয়। নোয়াখালীর বসুরহাটের সরকারি মুজিব কলেজে তিনি উচ্চ-মাধ্যমিক শেষ করেন। এরপর যুক্তরাষ্ট্রে একটি স্নাতক, চারটি স্নাতকোত্তর, দুটি ডক্টরেট ডিগ্রি (পিএইচডি এবং ডক্টরেট অব সাইকোলজি) সম্পন্ন করেন। বর্তমানে আরও দুটি ডক্টরেট ডিগ্রিতে অধ্যয়নরত।

গত পাঁচ বছর ধরে নিউইয়র্কের সিটি ইউনিভার্সিটির জন জে কলেজে অপরাধবিদ্যা, আইন ও বিচার বিভাগে অধ্যাপনা করছেন। এছাড়া সিটি ইউনিভার্সিটি নিউইয়র্ক ও হসটস কলেজে মনস্তাত্ত্বিক বিভাগে অধ্যাপনা করছেন।

একইসঙ্গে গত সাত বছর ধরে পেশায় একজন পুলিশ অফিসার হিসেবে নিউইয়র্ক সিটি পুলিশ ডিপার্টমেন্টে (এনওয়াইপিডি) কাউন্টার টেরোরিজমে কর্মরত আছেন। তার প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা ২০টিরও বেশি। নিউইয়র্কের সিটি ইউনিভার্সিটিতেও তার প্রকাশিত তিনটি বই পাঠ্যপুস্তক হিসেবে নিয়মিত পড়ানো হয়।

এছাড়া তিনি আয়না সনেটের জনক। আয়না সনেট সৃষ্টির মাধ্যমে বিশ্বে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছেন। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের তত্ত্বাবধানে প্রকাশিত বইটি এখন অ্যামাজনে পাওয়া যাচ্ছে। মূল্য রাখা হয়েছে ১৬ ডলার।

এসইউ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]