কিছুটা কড়াকড়ি রেখেই তুলে নেয়া হলো পূর্ব রাজাবাজারের লকডাউন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:১০ এএম, ০১ জুলাই ২০২০

পরীক্ষামূলকভাবে চলা পূর্ব রাজাবাজারে ২১ দিনের লকডাউনের মেয়াদ আজ রাতেই শেষ হয়েছে। ফলে খুলে দেয়া হয়েছে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজার। তবে করোনা সংক্রমণ যেন নতুন করে না বাড়ে, সেজন্য আরও ১০ থেকে ১৫ দিন কড়াকড়ি থাকবে ওই এলাকায়।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) রাতে স্থানীয় কাউন্সিলর ফরিদুর রহমান খান জানান, রাত ১২টা থেকে পূর্ব রাজাবাজারে আর লকডাউন থাকছে না। তবে আমরা সাবধানতার জন্য আরও ১০ থেকে ১৫ দিন কড়াকড়িভাবে এলাকা পর্যবেক্ষণ করব। এলাকার বাসিন্দা ছাড়া অন্য কাউকে অপ্রয়োজনে প্রবেশ করতে দেব না।

তিনি আরও বলেন, পূর্ব রাজাবাজারে ১০টি গেটের একটি খোলা ছিল। এখন থেকে দুইটি সম্পূর্ণভাবে খোলা থাকবে। বাকিগুলোর পকেট গেট খুলে দেয়া হবে। তবে সাধারণ মানুষের প্রবেশ ও বাহিরের ক্ষেত্রে পর্যবেক্ষণ করা হবে। অপ্রয়োজনে কেউ যেন এলাকায় প্রবেশ ও বের না হয়। এছাড়া প্রয়োজন ছাড়া রাস্তায় ঘোরাফেরাও নিয়ন্ত্রণ করা হবে। আর কোনো বাড়িতে যদি করোনা রোগী থাকে তাহলে কেবল সেই বাড়িটি আরও কিছুদিন লকডাউন করা হতে পারে।

গত ৯ জুন মধ্যরাতে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারে পরীক্ষামূলকভাবে লকডাউন শুরু হয়। পরে ২৩ জুন লকডাউন আরও সাতদিন বাড়ানোর ঘোষণা দেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

এদিকে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারে লকডাউনের পর এবার ‘রেড জোন’ হিসেবে চিহ্নিত ওয়ারী এলাকার ভেতরে-বাইরের আটটি রোডে লকডাউন শুরু হচ্ছে আগামী শনিবার সকাল ছয়টা থেকে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) আওতাধীন ওয়ারীর ৪১ নম্বর ওয়ার্ডের এই ৮টি এলাকার মধ্যে বাইরের রোডগুলো হলো-টিপু সুলতান রোড, জাহাঙ্গীর রোড, ঢাকা–সিলেট হাইওয়ের জয়কালী মন্দির থেকে বলধা গার্ডেন এবং ভেতরের রোডগুলো হলো লারমিনি স্ট্রিট, হরী স্ট্রিট, ওয়্যার স্ট্রিট, র‍্যাংকিং স্ট্রিট ও নবাব স্ট্রিট।

এএস/এসআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]