সাভারে ঝড় তুললেন আরিফুল

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৪৯ পিএম, ১৯ মার্চ ২০১৯

চলতি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটে এখনো পর্যন্ত তিন ম্যাচে জয়ের মুখ দেখেনি শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। চতুর্থ রাউন্ডের ম্যাচেও তাদের জয়বঞ্চিত রাখার প্রস্তুতি শেষ করে ফেলেছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব।

ইনিংসের শুরুতে এনামুল হক বিজয় এবং অভিমান্যু ঈশ্বরের সেঞ্চুরি ও শেষে আরিফুল হকের টর্নেডো ইনিংসে ৩৪৪ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে প্রাইম ব্যাংক। মৌসুমের প্রথম জয় পেতে শেখ জামালকে করতে হবে ৩৪৫ রান।

তৃতীয় রাউন্ডের ম্যাচে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের বিপক্ষে সেঞ্চুরির পর আজ চতুর্থ রাউন্ডে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের বিপক্ষেও তিন অঙ্কের দেখা পেয়েছেন ২৬ বছর বয়সী বিজয়।

সাভারে বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে গত ১৪ মার্চ রূপগঞ্জের বিপক্ষে অপরাজিত ১০০ রানের ইনিংস খেলে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিয়েছিলেন বিজয়। আজ তিনি খেলেছেন ১০১ রানের ইনিংস।

ম্যাচে টসে হেরে আগে ব্যাট করতে নামে প্রাইম ব্যাংক। মাত্র ৫ রানের মাথায় সাজঘরে ফিরে যান বিজয়ের উদ্বোধনী সঙ্গী রুবেল মিয়া। দ্বিতীয় উইকেটে বিশাল জুটি গড়েন অভিমান্যু ইশ্বর এবং এনামুল হক বিজয়।

দুজনের ২০৮ বলের ম্যারাথন জুটিতে প্রাইম ব্যাংক পায় ১৯৪ রান। লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারের ১১তম সেঞ্চুরি তুলে নেন এনামুল বিজয়। ১১৮ বলে ৮ চারের মারে নিজের সেঞ্চুরি করেন বিজয়।

ইনিংসের ৩৭তম ওভারের প্রথম বলে তানবির হায়দারের বোলিংয়ের শহীদুল ইসলামের হাতে ধরা পড়েন বিজয়। আউট হওয়ার আগে করেন ১০১ রান। একই ওভারের শেষ বলে আউট হন জাকির হাসানও।

তবে পরের ওভারেই ১০৫ বল খেলে ৬ চার ও ১ ছয়ের মারে নিজের লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি করেন প্রাইম ব্যাংকের ভারতীয় রিক্রুট অভিমান্যু। আউট হওয়ার আগে আর ব্যাট থেকে আসে ১২৬ বলে ১৩৩ রানের ঝকঝকে ইনিংস।

শেষদিকে প্রাইম ব্যাংক ইনিংসে ঝড় তোলেন ঘরোয়া ক্রিকেটের মারকুটে অলরাউন্ডার আরিফুল হক। ৪৫তম ওভারের দ্বিতীয় বলে অভিমান্যু ফিরে যাওয়ার পর শেষে ৩৪ বলে ৮৫ রান করে প্রাইম ব্যাংক। যার সিংহভাগই আসে আরিফুলের ব্যাট থেকে।

মাত্র ২২ বলে ফিফটি করেন আরিফুল। শেষপর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৩২ বলে ৬৭ রানের ইনিংস খেলে। ৪টি চারের সঙ্গে ৩টি বিশাল ছক্কা হাঁকান তিনি। এছাড়া ৭ বলে ১৬ রানের ইনিংস খেলেন অলক কাপালি। প্রাইম ব্যাংকের ইনিংস থামে ৬ উইকেটে ৩৪৪ রানে।

এসএএস/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :