চ্যাম্পিয়ন মেয়েদের বরণে বিমানবন্দরে যাবেন না সালাউদ্দিন

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৪ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২

সোমবার সন্ধ্যায় নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর দশরথ রঙ্গশালা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশকে এভারেস্টের চূড়ায় তুলে দিয়েছেন নারী ফুটবলাররা। নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে স্বাগতিক নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে তৈরি করেছে নতুন ইতিহাস। সেই ইতিহাস সৃষ্টিকারী বীর নারী বুটাররা দেশে ফিরছেন বুধবার দুপুরে।

ছাদখোলা বাসে নারী ফুটবলারদের বরণ করার প্রস্তুতি চলছে। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল নিজেই ঘোষণা করেছিলেন ছাদখোলা বাসে করে বিজয় উদযাপন করে নারী ফুটবলারদের আসা হবে মতিঝিলস্থ বাফুফে ভবনে।

নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে অভিভাবক হিসেবে ছিলেন বাফুফে নারী দলের চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার কিরণ। চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি হিসেবে নয়, সাফ চেয়ারম্যান হিসেবেও নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উপস্থিত থাকার কথা ছিল বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনের।

কিন্তু তিনি নেপাল যাননি। ছিলেন না বাংলাদেশের অবিস্মরণীয় এই বিজয় উদযাপনেও। শুধু তাই নয়, বুধবার যখন মেয়েরা দেশে ফিরবেন, তখনও তিনি বিমানবন্দরে উপস্থিত থাকবেন না। বিমানবন্দরে নারী ফুটবল দলকে স্বাগত জানাবেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। বাফুফে অন্য কর্মকর্তারা সেখানে উপস্থিত থাকবেণ

তবে, বাফুফে সভাপতি বিমানবন্দরে না গেলেও তিনি নারী ফুটবলারদের জন্য অপেক্ষা করবেন বাফুফে ভবনে। বিমানবন্দর থেকে ছাদখোলা বাসে করে ফুটবলাররা বিজয় উদযাপন করতে করতে বাফুফে ভবনে পৌঁছার পর তাদেরকে আরেক দফা স্বাগত ও ফুলেল শুভেচ্ছা জানাবেন বাফুফে সভাপতি সালাউদ্দিন।

কেন সালাউদ্দিন বিমানবন্দরেও যাবেন না? কারণ, তিনি মনে করেন বিমানবন্দরে গেলে নারী ফুটবলারদের চেয়ে সাধারণ মানুষের এবং সংবাদ মাধ্যমের ফোকাস এসে পড়বে তার ওপর। তিনি চান, যে মেয়েরা দেশকে সম্মান এনে দিয়েছেন। যারা চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন আলোটা তাদের ওপরই পড়ুক। ভুল বুঝবেন না উল্লেখ করে সভাপতি জানান, তার বাসা থেকে বিমানবন্দরই সবচেয়ে কাছে।

মঙ্গলবার বাফুফে ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কাজী সালাউদ্দিন কেন কাঠমান্ডু যাননি, তারও ব্যাখ্যা দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমি কাঠমান্ডু গেলে ভালোও হতে পারতো আবার খারাপও হতে পারতো। আমি গেলে হয়তো মেয়েরা চাপে পড়ে যেত। যদি ওদের ওপর এক্সট্রা প্রেসার হয়ে যায়, সেজন্য আমি যাইনি। তবে ওদের সব খেলা দেখেছি।’

বিমানবন্দরে না যাওয়ার কারণ হিসেবে সালাউদ্দিন আরো বলেন, ‘আমি বিমানবন্দরে যাবো না। কারণ গেলে আপনারা আমাকেই প্রশ্ন করবেন। এটা মেয়েদের টিম, ওরাই খেলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আমি চাই আলো যেন ওদের ওপর থাকে। অনেকে যাবেন। সচিব যাবেন। আমি চাই, আপনারা এটাকে প্লেয়ারস কাপ করে তুলুন। আমার না যাওয়া নিয়ে আপনারা ভুল বুঝবেন না।’

আইএইচএস/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।