‘সবার সঙ্গে আলোচনা করেই ঘরোয়া খেলাধুলা নিয়ে সিদ্ধান্ত’

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:৪৪ পিএম, ০৩ জুলাই ২০২০

ঠিক এক মাস আগে জাগো নিউজকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি বলেছিলেন, ‘ঘরোয়া খেলাধুলা নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে জুনের পর।’

জুন শেষে এখন জুলাইয়ের ৩ তারিখ। করোনাভাইরাস বিস্তার যেভাবে বাড়ছে, তাতে আরো সময় নিয়েই খেলাধুলা শুরুর বিষয়টি সিদ্ধান্ত নিতে হবে ক্রীড়া প্রশাসনকে।

সীমিত পরিসরে হলেও ঘরোয়া খেলাধুলা কবে নাগাদ শুরু সম্ভব? এ বিষয়ে কি ভাবছেন? শুক্রবার এমন প্রশ্ন করা হলে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা যখন ঘরোয়া খেলাধুলা বন্ধ করেছিলাম, তখন সব ফেডারেশন ও অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। আবার কখন কিভাবে শুরু করা যায়, সে সিদ্ধান্তও নেয়া হবে সবার সঙ্গে আলোচনা করে।’

সিদ্ধান্ত নিতে কবে নাগাদ বসতে পারেন ক্রীড়া ফেডারেশন ও অ্যাসোসিয়েশনগুলোর সঙ্গে? ‘কোনো তারিখ নির্ধারণ করিনি। তবে আগে যেহেতু বলেছিলাম জুনের পর সিদ্ধান্ত নেব, তাই এখন আমাদের আলোচনায় বসতে হবে। খুব তাড়াতাড়িই আমি সবার সঙ্গে আলোচনা করবো। সভা ডাকলে এ পরিস্থিতিতে অনেকে আসতে চান না। তাই ভার্চুয়াল সভা করব, না হয় টেলিফোনে সবার সঙ্গে কথা বলব’-বলছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি।

ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আগেই বলেছিলেন, ‘যেসব খেলায় ফিজিক্যাল কন্টাক্ট নেই যেমন দাবা, ক্যারম, সিঙ্গেল টেনিস, টেবিল টেনিস, ব্যাডমিন্টন, আরচারি, শুটিং। এগুলো সীমিত আকারে শুরু করা যায়।’

এগুলো আস্তে আস্তে কবে নাগাদ শুরু করা যেতে পারে সে ধারণাও সবার সঙ্গে আলোচনা করেই নিতে চান দেশের ক্রীড়ার এ অভিভাবক।

আরআই/এমএমআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]