কিংবদন্তি বক্সার থেকে ‘সেরা গাঁজার’ চাষি!

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৫৬ পিএম, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১

সাবেক মার্কিন বক্সার মাইক টাইসনের ক্যারিয়ারে ছিল ঈর্ষণীয় সাফল্য। কিন্তু সম্পদের ক্ষেত্রে বিরাট উত্থান-পতন দেখেছেন তিনি। এই বক্সার ক্যারিয়ারে আয় করেছিলেন ৫৮ কোটি ৪০ লাখ ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪ হাজার ৯৫০ কোটি টাকারও বেশি। সেখান থেকেই এক সময় তিনি দেউলিয়া হতে বসেছিলেন।

অভাবনীয় শোনালেও বিষয়টি সত্যি। তবে সে অবস্থা থেকে আবার ঘুরে দাঁড়িয়েছেন টাইসন। আবারও বিপুল অংকের আয় করতে শুরু করেছেন তিনি। হেভিওয়েট বক্সিংয়ে সর্বকালের অন্যতম সেরা টাইসনের অবসরের পর শুরু করা ব্যবসা নিয়ে অনেক জল্পনা-কল্পনা ছিল। ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য ডেইলি স্টার ইউকের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে এর বিস্তারিত।

না, আবার বক্সিংয়ের কোর্টে নয়। এবার টাইসনের আয়ের পন্থাটি একটু ‘ভিন্ন’। সাবেক এই বক্সার এখন পুরোদস্তুর গাঁজাচাষি ও ব্যবসায়ী। গাঁজা বেচেই মাসে পাঁচ লাখ ডলার অর্থাৎ সোয়া ৪ কোটি টাকার বেশি আয় তার।

ক্যারিয়ারের বিভিন্ন সময় ধর্ষণ, মাদকসহ নানা অভিযোগ ওঠে টাইসনের বিরুদ্ধে। সেজন্য দর্শকপ্রিয় ‘আয়রন মাইক’ থেকে জুটেছিল ‘দ্য ব্যাডেস্ট ম্যান অন দ্য প্ল্যানেট’ কুখ্যাতি।

mike-tyson-(2).jpg

টাইসন প্রতিষ্ঠিত গাঁজা চাষের কোম্পানির নাম ‘টাইসন র‍্যাঞ্চ’। এবার আর বেআইনি কিছু করছেন না তিনি। কারণ ১৬ হেক্টর জমির ওপর গড়ে ওঠা গাঁজার ফার্মটি যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায়। এই রাজ্যে গাঁজার ব্যবহার বৈধ।

২০১৬ সালের নভেম্বর থেকে ২১ বছরের বেশি বয়সীদের জন্য ক্যালিফোর্নিয়ায় গাঁজার বৈধতা দেয়া হয়।

শুধু ব্যবসাই নয়। মন চাইলে নিজের ফার্মে উৎপাদিত ফসল পরখ করতেও ভুল করেন না টাইসন।

নিজের ফার্মে উৎপাদিত গাঁজার গুণে মুগ্ধ হয়ে নিজেকে টাইসন দাবি করছেন ‘সেরা গাঁজার প্রস্ততকারক’ হিসেবে।

ক্যারিয়ারে মোট ৫৮টি ফাইটে লড়ে এর ৫০টিতেই জয় পান টাইসন, হেরেছেন ৬টিতে।

এসএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]